কিভাবে strong password তৈরি করবেন (hack-proof password)

strong password তৈরি

একটি strong password তৈরি করে নেওয়াটা এখন অত্তাধিক জরুরি একটা বিষয়। কেননা কেবল দুর্বল password ব্যবহার করবার জন্য আপনি hacking এর স্বীকার হতে পারেন।

অনেকে এমন আছে, তারা কেবল সহজ password ব্যবহার করে থাকে এই জন্য। যাতে তাদের password মনে রাখতে কোন সমস্যা না হয়।

তবে যদি আপনিও অতি সহজ ও দুর্বল password ব্যবহার করছেন, তবে তা এখনই সময় পরিবর্তন করে নেওয়ার।

কেননা, সহজ ও দুর্বল password সব সময় hack হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তবে চিন্তিত হবেন না। কিভাবে একটি strong password তৈরি করে নেওয়া যাবে, তা সম্পর্কে এই আর্টিকেলে বিস্তারিত আলচনা করব আজ।

আগের সময়ে যেমন সিন্দুকের চাবি খুব দামি ও গুরুত্তপূর্ণ জিনিস ছিল। বর্তমান সময়ে password জিনিস টিও ঠিক ততটাই গুরুত্বপূর্ণ জিনিস।

তার জন্য, password তৈরি ও hack-proof password তৈরি করা সম্পর্কে আপনার বিশেষ জ্ঞান রাখাটা অত্তাধিক জরুরি।

তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক, কিভাবে একটি strong password তৈরি করতে হয়। বা কিভাবে একটি hack-proof password তৈরি করবেন।

strong password তৈরি

দেখুন আমি খুব করে বলতে পারি, জতই বলি hack-proof password তৈরি করুন। তবে শতভাগ নিশ্চিতে তা করা সম্ভব নয়।

তবে কিছু বিষয়ের উপর যদি বিশেষ ধ্যান দিয়ে password তৈরি করছেন। তাহলে অনেকটাই নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন hack হওয়ার থেকে।

সাধারণত কিছু ভুল করবার ফলে, অধিক সময় hacking এর স্বীকার হতে হয়। যদি এই ভুল গুলি না করা হয় তবে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে।

যা, হবে hack-proof password।

তবে চলুন প্রথমে জেনে নেওয়া যাক, একটি strong password তৈরির পূর্বে কি,কি বিষয়ে ধ্যান রাখতে হবে।

Password তৈরিতে শুধুই নাম ব্যবহার

আমি খুব করে বলতে পারি, অনেকেই আছে তারা কেবল সহজ করে password তৈরিতে শুধু নিজের নাম ব্যবহার করে।

এমন ভাবে password তৈরি করা অধিক বোকামি হতে পারে। কেননা যদি নিজের নাম ব্যবহার করে password তৈরি করা হয়। তবে তা খুব সহজেই guess করা যেতে পারে।

যার জন্য, অতি সহজেই hacking এর স্বীকার হয়ে যেতে হতে পারে।

password তৈরিতে নিজের নাম ব্যবহার খারাপ কিছু নয়। তবে তা শুধু নিজের নাম নয়।

সাথে কিছু, সংখ্যা ব্যবহার করা যেতে পারে। পাসাপাশি কিছু (special character) ব্যবহার করা যেতে পারে।

যেমনঃ-

  • akash$14
  • akasH124%$
  • Golder^31&5Akash
  • [email protected]$1#

নামের সাথে এমন করে খুব সহজ করেই strong password তৈরি করা সম্ভব। যা স্বাভাবিক ভাবে guess করাটা অনেক কঠিন।

Password তৈরিতে সংখ্যা ব্যবহার

যদি আপনি এমন একটি password বর্তমানে ব্যবহার করছেন। তা শুধু সংখ্যা ব্যবহার করে তৈরি করা, তবে তা এখনই পরিবর্তন করে নিন।

কেননা, শুধু সংখ্যা ব্যবহার করে তৈরি করা password অধিক সময় hacking এর স্বীকার হয়ে থাকে।

তাই জন্য শুধু সংখ্যা ব্যবহার করে password তৈরি করাটা অনেক বোকামি করা হতে পারে।

তবে সংখ্যা ব্যবহার করেও strong password তৈরি করে নেওয়া সম্ভব। তার জন্য সংখার সাথে কিছু special character ব্যবহার করে তা করা যেতে পারে।

example:-

  • 14!*#423
  • 2^$7&8#(%^*6
  • (0^3!86^$&79
  • $%3$%^2%*[email protected]

এভাবে সংখ্যা ব্যবহার করে hack-proof password অতি সহজে তৈরি করা নিতে পারবেন।

Password তৈরিতে পছন্দের ব্যক্তিত্ব

যদি password তৈরিতে নিজের পছন্দের ব্যক্তিত্বর নাম ব্যবহার করছেন। তবে তা অত্তাধিক ভুল করছেন।

পছন্দের ব্যক্তিত্বর নাম ব্যবহার করে password তৈরি করলে, অধিক সহজে তা guess করে নেওয়া সম্ভব।

আপনার social media activity check করলে, এমন অনেক কিছু পাওয়া যেতে পারে। তার থেকে password guess করে নেওয়া কঠিন কিছু নয়।

ফলে password তৈরিতে নিজের পছন্দের ব্যক্তিত্বর নাম ব্যবহার না করাটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

তবে, যদি আপনি আপনার পছন্দের ব্যক্তিত্বর সাথে কিছু সংখ্যা ও special character ব্যবহার করে password তৈরি করছেন।

তবে তা একটি strong password তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে।

Example:-

  • someone*9*2)9&
  • &*^9someone*7)945
  • Some!$&*one14&#^%

এভাবে নিজের পছন্দের ব্যক্তিত্বর নাম ব্যবহার করে password তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে।

Password তৈরিতে পছন্দের বিষয়

যদি আপনি, strong password তৈরিতে নিজের নাম বা অন্য কিছু ব্যবহার না করতে চান।

তবে খুব ভাল হয়, নিজের কিছু পছন্দের বিষয় ব্যাবহারের মাধ্যমে একটি খুব শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করা যেতে পারে।

এমন password তৈরিতে নিজের পছন্দের বিষয় ব্যবহার করাটা খুবই বুদ্ধিমানের কাজ হতে পারে।

যদি password তৈরিতে নিজের কিছু পছন্দের বিষয় ব্যবহার করছেন তবে তা guess করাও অধিক কঠিন কাজ হবে।

কিভাবে নিজের পছন্দের বিষয় ব্যবহার করে একটি strong password তৈরি করবেন? আমি নিচে উদাহরন দিয়ে দিচ্ছি।

Example:-

  • i love to learn new thing = iltlnt
  • I love reading books = *!#ilr14&$%b4*7
  • I love to travel = il2^7&#%$68T1!(&%

তবে বুজতে পেরেছেন কিভাবে নিজের পছন্দের বিষয় ব্যবহার করে একটি hack-proof password তৈরি করে নিতে পারবেন। সাথে কিছু সংখ্যা ও special character ব্যাবহারের মাধ্যমে।

Password তৈরিতে dath of birth

অধিকাংশ সময়ে দেখা যায় password তৈরিতে নিজের dath of birth অনেকেই ব্যবহার করে থাকে।

যদি আপনিও আপনার password নিজের dath of birth ব্যবহার করে তৈরি করেছেন, তবে তা এখনই পরিবর্তন করে নিন।

কেননা নিজের dath of birth ব্যবহার করে password তৈরি করলে, খুব সহজে তা guess করা যায়।

আপনার social media profile তে আপনার dath of birth সম্পর্কে সব কিছু পাওয়া যেতে পারে। ফলে যদি আপনি নিজের password dath of birth দিয়ে তৈরি করেছেন।

তবে তা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যেতে পারে। ও আপনি hacking এর স্বীকার হয়ে যেতে পারেন।

আমি আপনাকে সর্বদার জন্যই পরামর্শ দিব – কখনই নিজের password তৈরিতে dath of birth ব্যবহার করবেন না।

hack-proof password

আমি শুরুতেই বলেছি, একদম সঠিক করে hack-proof password তৈরি করে নেওয়াটা কখনই সম্বব নই।

তবে যদি password তৈরি করবার সময় কিছু বিষয়ের উপর নজর দিয়ে password তৈরি করে নিতে পারেন। তবে তা অনেক খানি নিরাপদ বলা চলে।

এবং বর্তমানে একটি শক্তিশালী password তৈরি করে নেওয়া খুব কাজের। কেননা নিত্ত দিন এমন hacking হয়ে যাওয়ার অনেক কিছু শুনতে পাওয়া যায়।

তবে, এটা কখনই সম্ভব নয়। যা ব্যাবহারের মাধ্যমে একদম hacking-proof password তৈরি করে ফেলা সম্ভব।

কিছু, না কিছু সমস্যা সব সময়ের জন্য থাকবে।

Two step verification

যদি নিজের security আরও বেশি strong করে নিতে চাচ্ছেন। তবে আপনাকে অবশ্যই two step verification ব্যবহার করতে হবে।

ফলে নিজের security অধিক শক্তিশালী করে নেওয়া সম্ভব।

যদি আপনি two step verification ব্যবহার করছেন, তবে তা hack করবার জন্য যথেষ্ট বেগ পেতে হবে।

কেবল তাই নই, two step verification ব্যবহার করা বর্তমানে সময়ে খুবই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

কেননা two step verification এমন একটি প্রক্রিয়া যা bypass করা সহজ নয়।

আমার আপনাকে পরামর্শ থাকবে। অবশ্যই আপনি two step verification ব্যবহার করুন।

Password manager ব্যবহার

অনেকেই আছে, তাদের password মনে রাখতে সমস্যা হয়। তার জন্য সব সময় সহজ password ব্যবহার করে থাকে।

যদি আপনার ও password মনে রাখতে সমস্যা হয়, বা মনে না থাকে। তবে আপনি password manager ব্যবহার করতে পারেন।

অনেক browser এ default ভাবে password manager দেওয়া থাকে। তবে আমি পরামর্শ দিব তা ব্যবহার না করবার জন্য।

কেননা, এতে অনেক সময় আপনাকে সমস্যায় মাঝে পড়তে হতে পারে।

আপনি password manager এর জন্য Dashlane, বা LastPass ব্যবহার করতে পারেন। এই দুই password manager অধিক popular ও secure, ফলে আপনি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন।

Change your password regularly

যদি আপনি উপরে বর্ণীত সকল বিষয় ধ্যান রেখে password তৈরি করে নিয়েছেন। তবুও কিন্তু আপনি শতভাগ secure নন।

কেননা একটি password কে কখনই সম্পূর্ণ ভাবে secure করে রাখা সম্ভব নয়।

তাই জন্য, regular নিজের password change করুন। নির্দিষ্ট কিছু সময় বা দিন ঠিক করে নিন।

এবং তারপর সময় অনুয়াজি password change করে ফেলুন। এতে করে আপনার security কয়েক গুন বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

তা ছাড়া, regular নিজের password change করে নেওয়া খুবই বুদ্ধিমানের কাজ। কেননা এতে করে আপনার password সহজেই guess করা অত্তাধিক কঠিন।

তাই জন্য অবশ্যই নিয়মিত password change করে নিন।

Don’t use the same password

যদি আপনি আপনার সকল account বা সব যায়গাতে same password ব্যবহার করছেন। তবে এখনই password change করে নিন।

আপনার কখনই উচিৎ নয় multiple sites এ same password ব্যবহার করা। কেননা এতে hack হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অধিক বেড়ে যেতে পারে।

কোন ভাবে আপনার একটি account এর password hack হয়ে গেলে। তখন আপনার সব account hack হয়ে যাওয়ার প্রচুর সম্ভাবনা থাকছে।

কেননা আপনি সকল যায়গাতেই same password ব্যবহার করেছেন। তাই জন্য অবশ্যই মাথায় রাখবেন সকল যায়গাতে same password ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন।

মূলকথাঃ-

আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি, কিভাবে একটি strong password তৈরি করা যেতে পারে।

বা কিভাবে একটি hack-proof password তৈরি করা যায়। যদি আপনি আজকের আর্টিকেলে বলা সকল কিছু নজরে রেখে password তৈরি করে থাকেন।

তবে আপনি, অনেক টাই নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন।

সাধারণত আজকের আর্টিকেলে যে বিষয় গুলি সম্পর্কে আপনাকে বলা হয়েছে। এই বিষয় গুলোই যথেষ্ট একটি strong password তৈরি করে নিতে।

তো, আপনার কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকলে নিচে কমেন্ট সেকশনে তা আমাকে জানাতে ভুলবেন না।

বাই,বাই

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন। কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করবার চেষ্টা করি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

>