বর্তমান তারিখ:May 25, 2020

ইন্টারনেট ছাড়া কেমন হবে আমাদের দৈনন্দিক জীবন – কখনও ভেবে দেখেছেন কি?

ইন্টারনেট ছাড়া কেমন হবে আমাদের দৈনন্দিক জীবন - কখনও ভেবে দেখেছেন কি?

হুম না, ভেবে দেখা হয়নি তো! আর তা ছাড়া কেনই বা ভাবতে যাব ইন্টারনেট ছাড়া আমাদের দৈনন্দিক জীবন কেমন হবে এই বিষয় নিয়ে? আমার এসব নিয়ে মাথা ঘামানোর মত একটুও সময় নেই! আচ্ছা সব ঠিক আছে, বুজলাম আপনার এসব বিষয় নিয়ে মাথা ঘামানোর মত একটুও বাজে সময় নেই। কিন্তু আপনি জানেন কি – যদি কখনও ইন্টারনেট বন্ধ হয়ে যায় তাহলে সব থেকে বড় প্রবলেম এর স্বীকার সেই আপনাকেই হতে হবে!

কিভাবে? হুম, সব কিছুই এই আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করার চেস্টা করবো, এবং দেখব ঠিক কি হবে যদি কখনও ইন্টারনেট বন্ধ হয়ে যায়। তখন আমাদের দৈনন্দিক জীবনযাপনে কতটা পরিবর্তন আসতে পারে! ওকে নাও টাইম টু মুভ অন, চলুন তাহলে মুল আর্টিকেলে ডুব দেওয়া যাক।

ইন্টারনেট ছাড়া কেমন হতে পারে আমাদের দৈনন্দিক জীবন?

হুম, একটু ভিন্ন ভাবে চিন্তা করা যাক – প্রথমত বেশ ভালই হবে; যেমন এখন সবাই ভার্চুয়াল লাইফ টাকেই বেশি রকম ইনজয় করে, আবার এখন এমন অনেকেই আছে যাদের রিয়েল লাইফে ফ্রেন্ড নেই বললেই চলে। যা আছে সব সোশ্যাল মিডিয়াতে। সেই সকল মানুষের জন্য হয়তবা কিছুটা স্বস্তি ফিরে আসতে পারে। আসলে মাঝে মাঝে আমার নিজের ই মনে হতে শুরু করে এই ইন্টারনেট এর বাইরেও আলাদা করে একটা যায়গা আছে। যেখানে আমাদের সব কিছুই আছে – কিন্তু সমস্যা টা হচ্ছে গিয়ে আমরা দিন শেষ বেশ কুড়ে হয়ে গিছে – মানে এখন আর সেভাবে আগের মত করে আড্ডা দেওয়া ঘুরতে যাওয়া খেলাধুলা করা, এগুলা তেমন ভালো লাগে না।

আর তা ছাড়া ভালো লাগবেও বা কি করে, যখন সব কিছু ইন্টারনেট ব্যবহার করেই করা যাচ্ছে। এই যেমন আড্ডা দেওয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফ্রম আছে, সেই ভাবে খেলাধুলা বিনোদন এর জন্য আছে অনলাইন গেমিং প্লাটফরম। মানে সব কথার শেষ কথা ইন্টারনেট আছে তো আপনার হাতের কাছেই সব কিছুই আছে। কিন্তু আজ গল্প তো ভিন্ন! আজ তো আমরা কথা বলছি কি হবে যদি কখনও ইন্টারনেট না থাকে এই বিষয় নিয়ে।

তাহলে চলুন একটু ভেবে দেখা যাক কি হবে?

আপনার আমার মত সাধারন মানুষের হয়তবা খুব বড় বা বেশি রকম প্রবলেম এর সম্মুখীন হতে হবে না। তবে যারা অনলাইন এর মাধ্যমে বিজনেস করছে, বা জাদের সব বিজনেস অনলাইন ভিত্তিক তাদের কপালে কিন্তু সত্যি খুব দুঃখ আছে। তবে হ্যাঁ আমাদের ও কিন্তু অনেক বাজে সময় এর মধ্য দিয়ে যেতে হবে – যেমন এখন চাইলেই একে অন্যকে মুহূর্তেই মাঝেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে কথা বলা, বা ভিডিও তে দেখতে পারছি। তখন ব্যাপার টা আর এমন থাকবে না। ওই কিছুটা সেই আগের রাজা, মহারাজার জামানায় ফিরে যেতে হবে।

যেখানে ছিল না কোন মোবাইল ফোন, ছিল না কোন কম্পিটার আর সেই সাথে না ছিল কোন ইন্টারনেট। আর যদি ব্যাপার টা এমন হয় তাহলে ভেবে দেখুন বিষয় টা কতটা বাজে হতে পারে। তবে যাই হোক একটা বিষয় সত্যি অনেক ভালো হবে আমাদের জন্য তা হচ্ছে এখন যেমন সব কিছুই ইন্টারনেট মাধ্যমে হয়ে থাকে, তখন এমন কিছুই হবে না।

নিজেদের সব কিছু নিজেকেই করতে হবে। আচ্ছা আপনি বলতে পারেন আপনি ঠিক কত দিন আগে ঘুড়ি উড়িয়েছিলেন? ঠিক কতদিন আগে মাঠে ক্রিকেট খেলেছেন, এবং ঠিক কতদিন আগে সব বন্ধুরা মিলে কোথাও একটা টুরে গিয়েছিলেন। হয়তবা না আপনার মনে নেই? এখন আপনি বলতে পারেন, এখন যেহেতু লকডাউন চলছে তাই জন্য কোথাও ঘুরতে বা কোথাও বের হতে পারছি না!

হ্যাঁ, ঠিক আছে কিন্তু যখন লকডাউন ছিল না তখন কি আপনি এগুলা নিয়ে খুব বেশি মাতামাতি করেছেন? মেবি না, বড় জোর আপনি এটা করতে পারেন সন্ধার সময় চায়ের টং এ গিয়ে সবাই মিলে আড্ডা দিতে পারেন আর, মোবাইল ফোন ইন্টারনেট গেমস এই সকল বিষয় বস্তু নিয়ে বোর্ড মিটিং করতে পারেন! আর কি আর মেবি তেমন কিছুই না।


কিন্তু যদি কখনও পুরাপুরি ভাবে ইন্টারনেট বন্ধ হয়ে যায়, তখন কি হবে তখন কিভাবে সময় কাটাবো আমরা? আচ্ছা আমি আমার নিজের কথা বলি যদি কখনও একদম ইন্টারনেট না থাকে তখন আমি কি করবো!


অবশ্যই সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠবো, তারপর ফ্রেশ হয়ে নিয়ে নাস্তা করবো – তারপর আর কি পাড়ার পিচ্ছি দের সাথে খেলতে যাব, সারাদিন প্রচুর আড্ডা দেব, আমার অনেক গুলা বন্ধু আছে জাদের সাথে এই অনেক দিন হল কোন যোগাযোগ নেই তাদের খোঁজ খবর নিব, সবাইকে এক জায়গায় করে বিশাল রকমের একটা বোর্ড মিটিং করবো। তারপর আর কি রাতে একটা টুর দেওয়ার চেস্টা করবো; ওহ হ্যাঁ নিজের বাইক এর সাথে কিছুটা প্রেম করবো, এবং বিকাল টাইমে “বেলা বোশ কে খুজতে বের হব” তারপর আর কি এসকল হাবি জাবি কর্মকাণ্ড করতেই থাকব।

হা,হা,হা কি মজা লাগছে বুঝি, হুম আমার ও এই কথা গুলি লেখার সময় নিজের অজান্তেই হাসি পেয়ে যাচ্ছে। ইস সত্যি যদি এমন হত। আচ্ছা ইহা তো গেলো আমার নিজের কথা তবে সত্যি কি হবে যদি ইন্টারনেট একদম বন্ধ হয়ে যায়?

ব্রো অনেক কিছুই বাজে হবে তখন, এই যেমন আমি আপনাদের সাথে কানেক্টেড থাকতে পারবো না + যারা অনলাইন ভিত্তিক জব করে তারা চাকরী হারাবে। বড় বড় অনলাইন ভিত্তিক প্লাটফরম গুলি তাদের সব কিছুই হারাবে, যেমন গুগল, ফেচবুক, ইউটিউব, টুইটার,ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি ইত্যাদি। আর হ্যাঁ সব থেকে বেশি যা হবে, তা হবে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার বা টাকার লোকশান হবে।

তবে হ্যাঁ সত্যি কি কখনও এমন হওয়ার সম্ভাবনা আছে?

হুম, না মেবি না! হ্যাঁ এমন হতে পারে যে একটা নির্দিষ্ট এরিয়া ভিত্তিক যায়গাতে ইন্টারনেট না থাকা বা বন্ধ থাকতে পারে। তবে এমন কখনই হবে না যে সম্পূর্ণ ভাবে ইন্টারনেট বন্ধ বা অচল হয়ে পড়বে। আর উপরে যতই বলি না কেন, ইন্টারনেট না থাকলে বেশ ভালই হবে, আসলে সত্যি এটাই যে যদি কখনও এমন হয় তাহলে আমাদের মারাত্মক রকম সমস্যার মাঝে পড়তে হবে। যা বলে বুঝিয়ে শেষ করা পসেবল না। হ্যাঁ সত্যি তাই!

ওহ আর হ্যাঁ, এই আর্টিকেল টি লেখার পারপাস হচ্ছে লকডাউনে থাকতে থাকতে এক প্রকার উদাসীন একটা বিষয়ের উদয় হয়েছে নিজের মাঝে বুজতে পারছি। এবং তারই সূত্রপাতে চিন্তা শক্তি এমন টাইপ হয়ে গিছে। তাই ভাবলাম বসে না থেকে লেখি ফেলি; এক ঢিলে দুই পাখি মারার মত একটা বিষয়। নিজের উদাসীন ভাব টাও কাটল + আপনাদের সাথে কানেক্টেড ও থাকতে পারলাম… ব্যাস এটটুকুই 😍😍

ইমেজ ক্রেডিট; By Andrea Piacquadio Via Pexels

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা, আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলা আপনার সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করি...

2 Comments

  1. Ripon Reply

    বর্তমান প্রযুক্তির যুগে ইন্টারনেট ছাড়া জীবন মরুভুমির মত মনে হবে। ইন্টারনেট আমাদের দৈনন্দিন জিবনে এমন প্রভাব ফেলছে যা বলা বাহুল্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *