সিডিএন নিয়ে সব কিছু — আপনার যা জানা প্রয়োজন

সিডিএন নিয়ে সব কিছু — আপনার যা জানা প্রয়োজন

তুলনা মুলক ভাবে আপনার যেরকম টা এক্সপেক্টশন ছিল, তার থেকেও কি আপনার ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পীড অনেক স্লো? কি করবেন বুজতে পারছেন না, আপনার হোস্টিং পরিবর্তন করবেন ভাবছেন?ওয়েল ব্রাদার তার আগে আপনার কাছে আমার একটি প্রশ্ন — আপনি কি আপনার ওয়েবসাইটের জন্য সিডিএন ব্যবহার করেন? আপনার উত্তর যদি না হয়ে থাকে, তাহলে প্রথমেই হোস্টিং পরিবর্তন করার কথা চিন্তা না করে, এই আর্টিকেল এর সাথে থাকুন।

সিডিএন কি?

সিডিএন অর্থাৎ (কন্টেন্ট ডেলিভারি নেটওয়ার্ক), সিডিএন এর কাজ কি? সিডিএন এর কাজ কি এটা জানবার পূর্বে আমাদের আগে এটা জানতে হবে আপনার ওয়েবহোস্টিং বা সার্ভার কিভাবে কাজ করে। ধরুন আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন এবং আপনার টার্গেটে এশিয়ার ট্র্যাফিক, এখন আপনি এশিয়ার কোন সার্ভার কিনে ফেললেন আপনার ওয়েবসাইট হোস্ট করবার জন্য। বা আপনি এশিয়ার কোন সার্ভার ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেললেন।

এখন আপনার ওয়েবসাইটে যখন কোন ভিজিটর আসবে, ভিজিটর আসা মাত্রই কিন্তু আপনার কাঙ্খিত সার্ভারে একটি রিকুয়েস্ট যাবে, এবং তারপর আপনার ওয়েবসাইট লোড হবে। এখন আপনি যেহেতু এশিয়ার সার্ভার ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন, তারফলে আপনার ওয়েবসাইটে যদি এশিয়া থেকে ট্র্যাফিক আসে তাহলে আপনার ওয়েবসাইট অনেক ফাস্ট লোড হবে। কিন্তু আপনার ওয়েবসাইটে যদি US থেকে ট্র্যাফিক আসে তাহলে কিন্তু – তুলনামুলক ভাবে আপনার ওয়েবসাইট অনেক টাই ধিরে লোড হবে। এর কারন আপনি যে সার্ভার ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন সেই সার্ভার এর লোকেশন এশিয়া আর আপনার ওয়েবসাইটে যে ট্রাফিক আসছে তার লোকেশন USA, ফলে আপনার ওয়েবসাইট ধিরে লোড হওয়া টা খুব স্বাভাবিক।

সিডিএন কাজ করে কিভাবে?

সিডিএন এর কোন নির্দিষ্ট একটি সার্ভার নেই; যে আপনার ওয়েবসাইটে যখন কোন ভিজিটর আসবে তখন শুধু মাত্র সেই সার্ভারেই রিকুয়েস্ট যাবে। সিডিএন কাজ করে এভাবে, পুরা ওয়ার্ল্ডএ সিডিএন এর অনেক অনেক গুলা সার্ভার থাকে, আর আপনি যদি সিডিএন ব্যবহার করেন তাহলে পুরা ওয়ার্ল্ড থেকেও যদি আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসে তাহলে আপনার ওয়েবসাইট কখনই স্লো হবে না।

আচ্ছা আরও পরিস্কার করে বুঝিয়ে বলার চেস্টা করছি — ধরুন আপনি আপনার ওয়েবসাইটে সিডিএন ব্যবহার করছেন, এখন আপনার ওয়েবসাইটে যখন ট্র্যাফিক বা ভিজিটর আসবে, তখন কিন্তু সরাসরি আপনার সার্ভারে রিকুয়েস্ট যাবেনা। প্রথমেই আপনার কন্টেন্ট ডেলিভারি নেটওয়ার্ক এর কাছে রিকুয়েস্ট যাবে এবং তারপর আপনার সার্ভারে রিকুয়েস্ট যাবে। মাথার উপর দিয়ে যাচ্ছে আরও সহজ করে বলছি…

আপনার ওয়েবসাইটে যখন কোন ভিসিটর আসবে তখন প্রথমেই সেই ভিজিটর এর রিকুয়েস্ট যাবে সিডিএন এর কাছে তারপর সেখান থেকে যাবে আপনার সার্ভারে। এখন যেহেতু সরাসরি আপনার সার্ভারে রিকুয়েস্ট যাচ্ছে না ফলে আপনার সার্ভারেও কিন্তু বেশি লোড পড়ছে না। ফলে আপনার ওয়েবসাইটে বেশি ট্র্যাফিক হ্যান্ডল করতে পারবে। এবং তা ছাড়াও সিডিএন আপনার ওয়েবসাইট এর পুরা একটি কপি বানিয়ে তাদের আলাদা আলদা সার্ভারে রেখে দেয় ফলে যখন যেখান থেকে ট্র্যাফিক আসে তখন সেই লোকেশনে রাখা সার্ভার থেকে আপনার ওয়েবসাইট লোড হয়। এবং তাও অনেক ফাস্ট লোড হয়।


উদাহরনঃ আপনার সার্ভার এর লোকেশন বাংলাদেশ, আর আপনার সিডিএন এর সার্ভার ইন্ডিয়া, নেপাল ভুটান ইত্যাদি ইত্যাদি, এখন যদি ইন্ডিয়া থেকে আপনার ওয়েবসাইটে যদি কোন ট্রাফিক আসে তাহলে কি হবে? প্রথমেই সেই রিকুয়েস্ট চলে যাবে সিডিএন এর কাছে এবং ইন্ডিয়াতে থাকা সিডিএন এর সার্ভার থেকে আপনার সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট লোড হবে। আর যদি আপনি সিডিএন ব্যবহার না করতেন, তাহলে ইন্ডিয়া থেকে আপনার ওয়েবসাইটে ট্র্যাফিক আসলে, সেই ট্র্যাফিক এর রিকুয়েস্ট সরাসরি আপনার বাংলাদেশে থাকা সার্ভারে আসতো। এবং তারপর আপনার ওয়েবসাইট লোড হত, ও এই সম্পূর্ণ প্রসেস টা হতে কিছুটা সময় লাগত। কিন্তু আপনার ইন্ডিয়া থেকে আসা ভিজিটর এর রিকুয়েস্ট যেহেতু সরাসরি ইন্ডিয়ান সার্ভার থেকেই দেখানো হচ্ছে তাই সেই প্রসেস টা সম্পূর্ণ হতে অনেক কম সময় লাগে। তাহলে বুজতে পারলেন তো সিডিএন কাজ করে কিভাবে?


সিডিএন কি ফ্রী?

হুম 🤔🤔🤔 না আবার হ্যাঁ, আপনি যদি আপনার সবকিছু অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটে থাকা সকল ইমেজ বা ফাইল গুলি সিডিএন এ স্টোর করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে সিডিএন কিনে নিয়ে ব্যবহার করতে হবে। আর আপনি যদি চান আপনার ওয়েবসাইট এর সম্পূর্ণ একটা কপি সিডিএন এর আলাদা আলাদা সার্ভারে ক্যাশ করে রাখতে তাহলে আপনার জন্য সিডিএন সম্পূর্ণ ফ্রী।

আসলে ফ্রী সিডিএন দিয়েই প্রায় সব কিছু চলে যায় – নতুন অবস্থায় তো ফ্রী সিডিএন এ বেস্ট। এখন এই ফ্রী সিডিএন পাবেন কোথায়? ওয়েল অনেক গুলা ওয়ে আছে ফ্রী সিডিএন ব্যবহার করার, তবে ফ্রী সিডিএন এর মাঝে সব থেকে পপুলার হচ্ছে cloudflare আপনি cloudflare ব্যবহার করার মাধ্যমে ফ্রী সিডিএন এর স্বাদ তো নিতেই পারবেন সাথে আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য লাইফটাইম ফ্রী “এসএসএল/ SSl” পেয়ে যাবেন ও আপনার ওয়েবসাইটে কে ফ্রী ফায়ারওয়াল প্রটেকশন ও দিতে পারবেন।

তবে সিডিএন এর কিছু বাজে ও ভালো দিক আছে নিচে সেগুলা নিয়ে বিস্তারিত বলছি!

সিডিএন এর ভালো দিক

ভালো দিকের কথা তো উপরের কথা গুলি থেকে বুজতে পেরেছেন নিশ্চয়ই, আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য ফ্রী “ssl” পেয়ে যাবেন + ফ্রী ফায়ারওয়াল প্রটেকশন পাবেন + ওয়েবসাইট এর স্পীড দিগুন বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এবং আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ফ্রী সিডিএন ব্যবহার করলে আপনার ওয়েবসাইট এক সাথে অনেক ট্র্যাফিক হ্যান্ডল করতে সক্ষম হবে। যেমন আপনি যদি শেয়ার হোস্টিং ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে রিয়েল টাইম ৩০/৪০ + ভিজিটর হ্যান্ডল করতে পারে। আর যদি আপনার শেয়ার হোস্টিং + ফ্রী সিডিএন ব্যবহার করেন তাহলে রিয়েল টাইম ভিজিটর ২০০/২৫০ + হান্ডেল করতে পারবে, তাহলে ভালো দিক কি বুজতে পেরেছেন নিশ্চয়ই।

সিডিএন এর বাজে দিক

বাজে দিক বলতে তেমন কিছুই নেই; তবে একদম যে নেই ইহা বলাও ভুল হবে, সিডিএন এর বাজে দিক হচ্ছে শুধু এটা ধরুন আপনার ওয়েবসাইট যদি আপনি অনেক বেশি আপডেট করে থাকেন, নিয়মিত দু – চার টে করে আর্টিকেল লিখে থাকেন আপনার ওয়েবসাইটে তাহলে সিডিএন ব্যবহার না করাই ভালো হবে। কেননা অনেক সময় সিডিএন আপনার ওয়েবসাইট এর আগের ভার্সন ক্যাশ করে রাখে, ফলে আপনি যদি প্রতিদিন আপনার ব্লগ ওয়েবসাইট আপডেট করেন তাহলে অনেক লোকেশন থেকে আপনার ওয়েবসাইটের আপডেট ভার্সন নাও দেখাতে পারে। অর্থাৎ অনেক লোকেশন থেকে আপনার ওয়েবসাইট এর আগের ভার্সন দেখাতে পারে।


শেষ কথা এটা; যদি আপনি সিডিএন ব্যবহার করেন তাহলে ওয়েবসাইট আপডেট করা বা নতুন আর্টিকেল পাবলিশ করার পর আপনার ওয়েবসাইট এর ক্যাশ ক্লিয়ার করে নিবেন। আর হ্যাঁ, যদি আপনার টার্গেট শুধু বাংলাদেশ বা ইন্ডিয়ান ট্র্যাফিক হয়ে থাকে তাহলে সিডিএন ব্যবহার না করে আপনার যে কান্ট্রি থেকে বেশি ট্র্যাফিক আসছে সেই লোকেশনের একটি সার্ভার নিয়ে নিন।


ইমেজ ক্রেডিট; Pixabay Via Pexels

শেয়ার করুন:

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা, আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলা আপনার সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করি...

আপনার মতামত শেয়ার করুন...