সফটওয়্যার আপডেট কি? সফটওয়্যার আপডেট করার প্রয়োজনীয়তা (বিস্তারিত)

সফটওয়্যার আপডেট

সফটওয়্যার আপডেট এই ওয়ার্ড টা অনেকের কাছেই একটি মহা প্যাড়ার নাম। আর সেই দলের মানুষের মাঝে আপনি সামিল নেই তো? যার কাছে সফটওয়্যার আপডেট আসা মানেই ঝামেলা? ওয়েল, আপনি যদি সেই দলের মানুষ না হয়ে থাকেন তাহলে তো খুবই ভাল।

আর যদি আপনি সফটওয়্যার আপডেট আসলেই মাথার চুল ছেড়া শুরু করেন, তবে আজকের আর্টিকেল টি আপনার জন্যই! সফটওয়্যার আপডেট কেন ও কততা জরুরি, এবং কেন আপনার আপডেটেড সফটওয়্যার ইউজ করা উচিৎ। এই সকল কিছুই ক্লিয়ার করার চেস্টা করব আজ। সো সাথেই থাকুন ও সম্পূর্ণ আর্টিকেলের মজা নিন।

সফটওয়্যার আপডেট কি?

আপনি লেটেস্ট কোন একটি বান্ড এর একটি মোবাইল ফোন কিনে এনেছেন, এখন আপনি কয়েক দিন যাবত সেই কাঙ্খিত মোবাইল টি ইউজ করছেন। এবং আপনি এইযে কতগুলা দিন ধরে আপনার নতুন কেনা মোবাইল টি ইউজ করছেন। এই ব্যবহার করা দিন গুলির মাঝে আপনি এটা আবিষ্কার করেছেন যে, আপনার মোবাইল টি মাঝে মাঝেই হাং ও ভীষণ রকম বাজে পারফর্ম করছে!

ওয়েট, বাট আপনি তো মোবাইল ফোন টি নতুন কিনেছেন, নতুন ক্রয়ক্রিত মোবাইলে কিভাবে এমন সমস্যা হতে পারে? হুম, গল্প এই যায়গা থেকেই শুরু ব্রাদার।

আচ্ছা এখন এটা ধরে নিয়ে আগানো যাক যে, আপনার নতুন কেনা মোবাইল টিটে আপনি কিছু কিছু সমস্যা ফেচ করছেন। এখন হঠাৎ করে একদিন আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে করতে, আপনার মোবাইলের স্ক্রিনে একটি নোটিফিকেশন পেলেন।

এবং সেই নোটিফিকেশনে আপনাকে বলা হচ্ছে, আপনার মোবাইলের জন্য একটি আপদেট এসেছে। আর আপনি এই নোটিফিকেশন পাওয়া মাত্রই আপনার মোবাইল টি আপডেট করে ফেললেন – আন্ড বুম আপনার মোবাইলে যে সমস্যা গুলি ছিল তার আর চিহ্ন মাত্র নাই। কি মজা না!

বাট, আপনি যদি এই নোটিফিকেশন দেখা মাত্রই ইহাকা ইগ্নর করতেন তাহলে আপনার মোবাইলের সমস্যা গুলি সব সময়ই থেকে যেত।

আর ঠিক এভাবেই সফটওয়্যার আপডেট কাজ করে, অর্থাৎ যখন কোন অ্যাপস, সফটওয়্যারের নতুন ভার্সন রিলিজ করা হয়, তার মানে হচ্ছে সেই আপস, বা সফটওয়্যার এর মাঝে যে সকল বাগ, ত্রুটি ছিল সেগুলাকে ফিক্স করে দেওয়া হয়।

অনেক সময় যখন নতুন কোন সফটওয়্যার বা আপস রিলিজ করা হয়, তখন সেই আপস এর মাঝে অনেক বাগ ও সিকুরিটি ইসু থাকে। যেগুলা আপডেট এর মাধ্যমে ফিক্স করে দেওয়া হয়। ওয়েল, আই থিঙ্ক আপনি বিষয় টা ক্লিয়ার করে বুজতে পেরেছেন।


আচ্ছা আরো কিছুটা ক্লিয়ার করে বুঝানোর চেস্টা করছি!


উপরে তো আপনাকে একটি মোবাইলের উদাহরণ দিয়ে বুঝানোর চেস্টা করলাম যে সফটওয়্যার আপডেট কি, এখন এই বিষয় টা আরও পরিস্কার ভাবে বুঝিয়ে বলছি।

সফটওয়্যার আপডেট মানেই কিন্তু শুধু বাগ, বা সিকিউরিটি ইসু গুলা ফিক্স করে নেওয়া নয়। যদি বার বার সফটওয়্যার আপডেট আসে তাহলে বিরক্ত না হয়ে আপডেট করে ফেলুন – তার কারন যখনই সফটওয়্যার আপডেট ভার্সন রিলিজ দেওয়া হয়।

তখন সেই আপডেট ক্রিত, সফটওয়্যার আপস টিতে বাগ, সিকিউরিটি ইসু তো ফিক্স করে দেওয়া হয় সেই সাথে নতুন নতুন ফিচার ও অ্যাড করে দেওয়া হয়, ও সব সময় আপডেট ভার্সন কে স্টাবেল ভার্সন বলেন বিবেচিত করা হয়।

তার কারন একটা আপস, সফটওয়্যারে আপনি নিত্ত নতুন সমস্যার সম্মুখিন হতেই পারেন এটা খুব স্বাভাবিক – কিন্তু সেই আপস টির যদি আপডেট ভার্সন রিলিজ দেওয়া হয় তার মানে বুজতে হবে সেই আপস টীতে যে বাগ বা যে সমস্যা গুলি ছিল – সেই সকল সমস্যার সমাধান করে দেওয়া হয়েছে। ফলে আপনি এখন সেই আপস টি স্মুত ভাবে রান করতে পারবেন। আর এ কারনেই আপডেটেড ভার্সন কে সব সময় স্টাবেল ভার্সন বলা হয়ে থাকে।

তাহলে আসা করছি, আপনি সফটওয়্যারে আপডেট কি ও কিভাবে কাজ করে এটা বুজতে পেরেছেন!সফটওয়্যারে আপডেট নিয়ে আপনার কোন প্রস্ন থাকলে নিচে কমেন্ট সেকশনে তা অবশ্যই জানাবেন?

সফটওয়্যারে আপডেট করবার প্রয়োজনীয়তা কতটুকু?

অবশ্যই অনেক টা! তার কারন আপডেটেড সফটওয়্যারে ইউজ করার মজাই আলাদা, একই সাথে নিত্ত নতুন ফিচার যুক্ত হচ্ছে সেই সাথে পারফর্মেন্স বুস্ট হয়ে যাচ্ছে। তাহল এখন বলেন আপনি আপডেটেড সফটওয়্যারে কেন ইউজ করবেন না।

অনেক সময় এমন ও হয়ে থাকে যে কোন একটি আপস, বা সফটওয়্যারে এর ভার্সন আপনার ডিভাইস এর সাথে কমফোর্টেবল নয়, ফলে আপনি আপনার ডিভাইসে সেই আপস বা সফটওয়্যারে থেকে অনেক বাজে পারফর্ম পাচ্ছেন।

এবং সেই সুত্রপাতে আপনি আপনার ডিভাইস কে দোষারোপ করছেন যে না আমার ডিভাইস টাই আসলে বাজে এটা চেঙ্গ করতে হবে। এখানে আমার আপনার প্রতি একটা প্রস্ন আছে আপনি কিভাবে বুজতে পারলেন যে এটা আপনার ডিভাইস জনিত ইসু?

আপনি আমাকে এখন বলতে পারেন, ভাই এতোটুকু আমি খুব ভালই বুঝি আগে এই সেইম ভার্সন এর সফটওয়্যারে ইনেক বেটার পারফর্ম করেছে, আর যখনই আমি এই সফটওয়্যারে টির লেটেস্ট ভার্সন ইন্সটাল করেছি আমার ডিভাইসে তখন থেকেই আমি পারফর্মেন্স এর অনেক বাজে অবস্থা দেখতে পাচ্ছি।

আচ্ছা, হ্যাঁ তাতে কি হয়েছে – আমি আবারও আপনাকে প্রস্ন করছি ভাই এর থেকে আপনি এটা কিভাবে বুজতে পারলেন যে আপনার ডিভাইস দুর্বল হয়ে পড়েছে, তার ফলে আপনার ডিভাইস বাজে পারফর্ম করছে।

বিষয় টা তো এমন ও হতে পারে, যে আপনি লেটেস্ট যে সফটওয়্যারে তা ইন্সটল করেছেন আপনার ডিভাইসে, সেই সফটওয়্যারের মাঝেই ঝামেলা আছে, হতে পারে অনেক বাগ আছে যার ফলে এই ভার্শনে এরকম বাজে পারফর্ম করছে।

না, না ভাই সব সময় যে আপডেট ক্রিত ভার্সনই বেস্ট হবে, এরকম মিথ্যা আমি আপনাদের বলতে পারবো না, অনেক সময় লেটেস্ট রিলিজ দেওয়া আপস, বা সফটওয়্যারে গুলার মাঝেও বাগ পাওয়া যেতে পারে। আর তার ফলে আপনাকে বাজে পারফর্ম ও পেতে হতে পারে।

আসলে একটা মারাত্তক সত্য কথা এটাই – যে কোন আপস বা সফটওয়্যারে কখনই সম্পূর্ণ বাগ ফ্রী না। কিছু না কিছু সমস্যা তাতে থাকবেই, আর যারা এক্সপার্ট তাদের কাজ হচ্ছে এই বাগ গুলিকে খুঁজে বের করা। আর যখন এক্সপার্ট লোকেরা এই বাগ গুলি খুঁজে বের করে ফেলে, তারপর সেই বাগ গুলিকে ফিক্স করে নতুন একটা আপডেট ভার্সন রিলিজ দেওয়া হয়

কিন্তু হ্যাঁ, সেই আপডেট করা রিলিজ এর মাঝেও বাগ থাকতে পারে, মানে আপনি কখনই পুরোপুরি নিশ্চিন্ত হতে পারবেন না যে আপনি সম্পূর্ণ বাগ ফ্রী কোন আপস বা সফটওয়্যার ইউজ করছেন।

আর মুলত এ জন্যই সর্বদাই চেস্টা করা উচিৎ আপডেটেড ভার্সন এর আপস, সফটওয়্যার ইউজ করার। এখন আপনি আমাকে প্রস্ন করতে পারেন ভাই একটি কাঙ্ক্ষিত সফটওয়্যার আপডেট দেওয়ার পর থেকে আমার ডিভাইস অনেক স্লো হয়ে পড়েছে। এখন তাহলে কি করব?

ওয়েল, খুব সহজ উত্তর আপনার প্রস্নের – এমনও হতে পারে আপনার সেই কাঙ্ক্ষিত আপস টির লেটেস্ট রিলিজ দেওয়া ভার্শনেই অনেক সমস্যা আছে, যারা তাহা বুজতে না পেরেই নতুন ভার্সন রিলিজ করে দিয়েছে। আর তার ফলেই আপনার ডিভাইস বাজে পারফর্ম করছে।

এখন আপনি যা করতে পারেন তা হচ্ছে, ওয়েট করুন সেই সফটওয়্যার এর নতুন ভার্সন রিলিজ পাবার জন্য। অথবা আপনি সেই আপস এর পুরানো ভার্শনে ফিরে যেতে পারেন। তারপর যখন নতুন ভার্সন রিলিজ দেওয়া হবে তখন ইউজ করে দেখবেন এখন প্রবলেম পাচ্ছেন কিনা।

যদি না পান তাহলে বুজতে হবে এটা ওই সফটওয়্যার রিলেটেড কোন ইসু ছিল, আর যদি নতুন রিলিজ ভার্সন ইন্সটল করার পরেও প্রবলেম পান, তাহলে ভাইয়া বুজতে হবে আপনার ডিভাইস থেকে বলছে আর পারছি না বাপ, আমাকে ছেড়ে দে। হি,হি,হি

সফটওয়্যার আপডেট না করা কি বোকামি?

হুম, আবার না! কিভাবে? আপনি যদি একজন সিরিয়াস টেক পোকা হয়ে থাকেন তাহলে আই থিঙ্ক আপনি সর্বদাই আপদেটেড সফটওয়্যার আপস এর সাথে যেতে বেশি কমফোর্টেবল করবেন।

আর যদি আপনি হচ্ছে, হবে কি হবে আপডেট করে এসব চিন্তা ধারার মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি বোকামি করছেন, তার প্রথম ও প্রধান কারন হচ্ছে, আপনি আপডেটেড সকল ফিচার সমহু মিস করে জাচ্ছেন সাথে অনেক সময় বাজে পারফর্মেন্স এর স্বীকার ও হচ্ছেন।

কিন্তু ঐযে আপনি এসব বিষয় নিয়ে মাথার চুল ছেড়েন না। কি হবে এসব আপডেট করে এটা ভেবে বসে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে বলব – হ্যাঁ ব্রাদার এটা আপনার বোকামি। কেননা আপনি সকল নতুন নতুন ফিচার মিস করে যাচ্ছেন ও নিজেকে পিরামিডের জামানার মানুষ বলে আখ্যায়িত করছেন।

আসলে সত্য কথা বলতে এটাই- যে আপডেটেড সফটওয়্যার বা আপস না ব্যবহার করাটা কোন ভাবেই আপনার বোকামি না। তার কারন আপনি যদি যতটুকু পাচ্ছেন তা নিয়ে যদি আপনি হ্যাপি থাকেন তাহলে এটা তো খুব ভাল কথা।

ওপর দিকে আপনি যদি আমার মত টেক পোকা হয়ে থাকেন তাহলে আপনার অবশ্যই টেকনোলজির নানান বিষয় নিয়ে চুল চেরা বিসশেশন বিশ্লেষণ করতে ভাল লাগবে ও সব সময় নতুন ও আপদেটেড বিসয়ের সাথে যেতে বেশি পছন্দ করবেন।

সো এখানে বোকামির কিছু নাই, যদি আপনি আপডেট না করেই কোন সফটওয়্যার যুগ থেকে যুগান্তর ইউজ করে যেতে চান, হুম তাও করতে পারেন। তবে আমি শুধু আপনাকে এতোটুকু বলতে চাই আপডেটেড সফটওয়্যার বা আপস ব্যবহার না করার অর্থ হচ্ছে নিজেকে সময়ের থেকে পিছিয়ে রাখা ও নতুন নতুন অনেক ফিচার মিস করে যাওয়া।

শেষ কথাঃ

অবশ্যই সর্বদা লেটেস্ট আপস, সফটওয়্যার ব্যবহার করা উচিৎ – তবে এখানে দেখার বিষয় হচ্ছে আপনার ডিভাইস এর সাথে যদি আপদেটেড ভার্সন স্টাবেল ভাবে ওয়ার্ক না করে তবে আপনার পুরানো ভার্সন এর সাথেই থাকা উচিৎ। মোরাল অফ দা স্টোরি আপনি আপনি যদি সর্বদাই নিজেকে আপদেটেড ফিচার এর মধ্যে রাখতে চান দেন সব সময় আপদেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করাই বুদ্ধি মানের কাজ হবে।

আর যদি আপনার ডিভাইস না পেরে উঠে, তাহলে আর কি যা আছে তাই নিয়েই খুশি থাকুন না মশাই, হি,হি,হি তা ছাড়া আর কি বা বলব বলুন ব্রাদার, কারন এখানে তো আর আমার কোন হাত নেই যে আমি তা ঠিক করে দিতে সক্ষম। হ্যাঁ যদি আমার পক্ষে এরকম টা পসেবল হতে তাহলে আমি ডেফেনেটলি তাই করতাম।

ওকে নাও টাইম টু সে গুড বাই। হ্যাপি লার্নিং

ফিচার ইমেজ ক্রেডিট; By Szabo Viktor Via Unsplash

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করার চেষ্টা করি

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

>