ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে কত সময় লাগে? (বিস্তারিত)

ব্লগিং-থেকে-ইনকাম-শুরু-হতে-কত-সময়-লাগে-বিস্তারিত

ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে কত সময় লাগে? ওয়েল, আমি যখন প্রথম ব্লগিং শুরু করি তখন আমার মাথায় ও অনেক ক বার এই প্রশ্ন টা এসেছে; তবে আমি এই প্রশ্নের ঠিক মতো উত্তর কোথাও খুজে পাইনি। পেলেও এমন ভাবে পেয়েছি এক – এক জায়গায় এক এক রকম।

তো যাই হোক ফাইনালি আজ আমি এই জটিল প্রশ্নের উত্তর দিতে চলেছি; আমি একদম প্রথম থেকেই বলব ঠিক কত দিন সময় লাগতে পারে ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে। তাহলে চলুন শুরু থেকে শুরু করা যাক। সাথেই থাকুন!

আপনার টপিক ঠিক আছে তো?

দেখুন আমি সব সময় একটা কথাই বলে থাকি, ব্লগিং কোন সাধারন বিষয় না, যে আপনি চাইলেন আর ব্লগিং শুরু করে দিলেন আর তাৎক্ষনিক ভাবেই আপনার ইনকাম হওয়াও শুরু হয়ে গেলো। ব্লগিং করতে হলে আপনাকে অনেক ধৈর্য ধরতে হবে; পাশাপাশি প্রতিনিয়ত আপনার ব্লগে কনটেন্ট পাবলিশ করে যেতে হবে। কেবল তবেই আপনি ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন!

এখন ব্লগিং থেকে টাকা ইনকাম শুরু হতে আপনার ঠিক কত দিন সময় লাগতে পারে? ওয়েল এটা নির্ভর করে আপনি কি টপিক এর উপর ব্লগিং করছেন? এবং আপনার কনটেন্ট এর কোয়ালিটি কেমন তার উপর। মূলত ব্লগিং করে ইনকাম করার মেইন উৎস হচ্ছে গুগল এডসেন্স; এ ছাড়াও আপনি লোকাল ভাবেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে শুরুতে লোকাল ভাবে ইনকাম করার আশা টা না করাই ভালো হবে।

এছাড়া এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ও ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করা যেতে পারে। তবে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম করতে গেলে, অনেক সময় লেগে যাবে; আমাদের বাংলাদেশের কথা মাথায় রেখে ব্লগিং করলে। বাংলাদেশ থেকে বাংলায় ব্লগিং করলে এডসেন্স এর উপরই আপনাকে আস্থা রাখতে হবে।

এখন ধরে নেওয়া যাক; আপনি গুগল এডসেন্স এর সাথেই কাজ করবেন, তাহলে আপনার ব্লগিং করে প্রথম ইনকাম শুরু হতে কত দিন সময় লাগবে? ওয়েল, এখানেও নির্ভর করছে আপনি কেমন বা কি টপিক এর উপর কনটেন্ট লিখছেন। আপনি যদি টেকনিক্যাল টপিক নিয়ে কাজ করেন তাহলে সত্য বলব কম পক্ষে আপনার ১ বছর সময় তো ভাল ভাবে লেগে যাবে। ব্লগিং থেকে স্বচ্ছ একটা ইনকাম আসতে।

তবে আপনি যদি অন্যান্য টপিক নিয়ে কাজ করেন; এই যেমন মেডিক্যাল; ট্রাভেল, রেসিপি ইত্যাদি ইত্যাদি। তাহলে আশা করা যায় ৬/৭ মাস পর থেকে কমপক্ষে ১০০ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

কিন্তু এখানে একটি কথা উল্লেক করে দিতে চাই। আপনি কেমন কনটেন্ট লিখছেন এবং আপনার কনটেন্ট এর কোয়ালিটি কেমন তার উপর ও নির্ভর করে আপনার কেমন ইনকাম হবে। আমি অনেকেই বলতে শুনেছি কম পক্ষে ১০০০ থেকে ১৫০০ ওয়ার্ড এর আর্টিকেল লিখতে হবে; অন্যথায় আপনার ব্লগ রেঙ্ক করবে না, ব্লগে ট্রাফিক আসবে না; ব্লা,ব্লা,ব্লা।

না এরকম কোন কথাই সত্য না। আপনার কনটেন্ট এর চাহিদা ঠিক যতটুকু; আপনি ঠিক তততুকুই তো লিখবেন তাই না। এমন টা নয় যে আপনি যাই লিখুন না কেন আপনাকে ১০০০/২০০০ ওয়ার্ড এর আর্টিকেল লিখতে হবে। আপনাকে আর্টিকেল এর বিষয় বস্তু সম্পূর্ণ ভাবে কভার করতে হবে, সে ১০০০ ওয়ার্ড লাগুক আর ২০০ ওয়ার্ড লাগুক। আর এর জন্য মোটেও আপনার ইনকাম কম হবে না।

ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে কত সময় লাগবে?

এখন একদম মুল বিষয়ে আশা যাক। একজেক্টলি আপনার কত দিন সময় লাগবে ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে। ওয়েল, উত্তর কম পক্ষে ৬/৭ মাস তবে এর আগেও ইনকাম শুরু হতে পারে, যদিনা আপনি ব্লগিং টাকে সিরিয়াসলি নিয়ে কাজ করেন।

আপনার ব্লগ থেকে ইনকাম হওয়া তখনই শুরু হবে; যখন আপনার ব্লগে মিনিমাম ১০০/১৫০ আর্টিকেল পাবলিশ থাকবে। এবং প্রায় সব আর্টিকেল গুগলে ইনডেক্স থাকবে। দেখুন আপনি এই কথাটা শোনার পর ভাবতে পারেন ১০০/১৫০ আর্টিকেল কোন ব্যাপার নাকি। আমি ১ মাসেই ১০০ আর্টিকেল লিখে ফেলতে পারব। হ্যাঁ হয়তবা পারবেন; তবে কোয়ালিটি কনটেন্ট লিখতে পারবেন কি?

আচ্ছা আপনি কোয়ালিটি কনটেন্ট লিখলেন; কিন্তু গুগলে আপনার সব গুলি আর্টিকেল ১ মাসে ইনডেক্স হবে কি? আশা করি হবে না; এবং হওয়াটা পসেবল ও না। আর গুগলে আপনার কনটেন্ট ইনডেক্স না হলে আপনার ব্লগে ট্র্যাফিক ও আসবে না। আর ট্রাফিক না আসলে আপনার ইনকাম হবে কিভাবে?

তাই চেস্টা করতে হবে ভাল কনটেন্ট লেখার; এবং সময় নিয়ে আর্টিকেল লেখার; আর কম করে এই ব্লগিং এর পিছনে ৬/৭ মাস সময় দিয়ে যেতে হবে। তবেই আপনি আপনার কাজের ফলাফল দেখতে পাবেন।

আচ্ছা কত টাকা ইনাকাম করতে পারব ব্লগিং থেকে ৬/৭ মাস পর? কোটি টাঁকার প্রশ্ন এটা; দেখুন আপনার কাজ এবং আপনার ব্লগের কনটেন্ট এবং আপনি কিভাবে এড প্লেসমেন্ট করেছেন; তার উপর নির্ভর করছে আপনি ৬/৭ মাস পর ঠিক কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে মিনিয়াম ১০০ ডলার প্রতি মাসে ভাল ভাবেই ইনকাম করতে পারবেন।

কত পেজ ভিউয়ে কত টাকা দিয়ে থাকে গুগলে এডসেন্স?

এই প্রশ্ন টা শুনতে শুনতে আসলে মাথা ধরার অবস্থা হয়ে গেছে। তবে আপনাকে বলে দিতে চাই আপনার ব্লগে কেমন ট্রাফিক আসছে; বা কোন কান্ট্রি থেকে ট্রাফিক আসছে তার উপর নির্ভর করে কত টাকা দিবে এডসেন্স বা আপনার কত টাকা ইনকাম হবে।

আপনার ব্লগের কনটেন্ট বাংলায় হয়ে থাকলে, বাংলাদেশ বা ইন্ডিয়া থেকে ট্রাফিক আসলে ১০০০ পেজ ভিউ তে আপনি ৩/৫ ডলার এর মত পেয়ে যাবেন। আর আপনার কনটেন্ট যদি ইংরেজি হয়ে থাকে এবং আপনার ব্লগে অ্যামেরিকা থেকে বা ওয়ার্ড ওইড থেকে ট্রাফিক আসে তাহলে প্রতি হাজার পেজ ভিউ তে ৫/৮ ডলার বা আরও বেশি ইনকাম হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

তবে মোরাল বলব বাংলায় কনটেন্ট হলে প্রতি হাজার পেজ ভিউ তে ৩/৪ ডলার খুব ভাল করে ইনকাম করতে পারবেন। আর আপনার ব্লগে ১০০০/১৫০০ ট্রাফিক আসতে কম পক্ষে ৬/৭ মাস সময় খুব ভাল করে লেগে যাবে; তার কারন বাংলায় ব্লগিং এর চাহিদা তেমন একটা না। যেখানে বাইরের দেশে ব্লগিং নিয়ে কত মাতামাতি ব্লগিং কে নিজের ক্যারিয়ার হিসাবে নিয়ে কাজ করছে সবাই।

আর আমাদের দেশে ব্লগিং এর চাহিদা তেমন না হওয়ায় আপনার কিছুটা বেগ পেতে হবে আপনার ব্লগে ট্রাফিক আনার জন্য। তবে কোন কিছুই অস্মভব না আপনি মন দিয়ে কাজ করলে অর্থাৎ মন দিয়ে ব্লগিং করলে ৬/৭ মাস পর ১৫০০/২০০০ হাজার অরগানিক ট্রাফিক অনায়াসে আনতে পারবেন।

এখন ধরুন আপনার ব্লগে পার ডে ১৫০০ ট্রাফিক আসছে অর্থাৎ ৫ ডলার প্রতিদিন ইনকাম হচ্ছে। তাহলে ৫×30= 150; কি তাহলে দেখলেন তো খুব ভাল ভাবেই ৬/৭ মাস পড়ে আপনি মোটামুটি বাংলাদেশি টাকায় ১০/১২ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারছেন।

আপনাকে শুধু প্রতিনিয়ত আপনার ব্লগে ভাল কনটেন্ট পাবলিশ করে যেতে হবে; এবং নিজের কাজ এবং নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। এবং কিছুটা ধৈর্য রাখতে হবে; তাহলে দেখবেন আপনি আপনার কাজের ভাল ফলাফল পাচ্ছেন।

আমাদের শেষ কথা

এই আর্টিকেল যা কিছু আপনার সাথে শেয়ার করছি সব টাই নিজের পার্সোনাল এক্সপিরিয়ান্স থেকেই শেয়ার করেছি। আমার নিজের মাথায় ও এই একই প্রশ্ন গুলি জট বাঁধত; কিভাবে কি করবো, ঠিক কত দিন পর ব্লগ থেকে টাকা ইনকাম হওয়া শুরু হবে? ব্লা,ব্লা,ব্লা; তো যাই হোক আমার মনে হয় আপনি এই আর্টিকেল এর বিষয় বস্তু বুজতে পেরেছেন। তারপরেও আপনার কিছু জানার বা আমাকে কিছু বলার থাকলে আপনার মূল্যবান মতামত টি নিচে ড্রপ করে আমাকে জানাতে পারেন। ধন্যবাদ !

ইমেজ ক্রেডিট; Aron Visuals Via Unsplash

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করার চেষ্টা করি।

5 responses on “ব্লগিং থেকে ইনকাম শুরু হতে কত সময় লাগে? (বিস্তারিত)”

  1. বাংলায় ব্লগিং এর ক্ষেত্রে মাল্টি নিশ কতটা কার্যকর? আমি মূলত ব্লগিং, নিজের লেখা গল্প, লাইফ হ্যাক্স এই তিনটি বিষয় নিয়ে ব্লগ খুলতে চাই। আমি কি যে কোনো একটা নিশ নির্ধারণ না করলে উন্নতি করতে পারবো না?

    Reply
    • অবশ্যই পারবেন! আর সত্য কথা বলতে কি যদি আপনি নির্দিষ্ট একটি নিশ সিলেক্ট করে ব্লগিং শুরু করেন, তাহলে কিছুদিন পর আপনিও ক্লান্ত হয়ে পড়বেন পাশাপাশি আপনার ব্লগের ভিসিটর গন ও বোরিং ফিল করতে শুরু করবে। সো, ব্রাদার মাল্টি নিশ নিয়ে ব্লগিং করলে আপনিও বোরিং হবেন না + আপনার ব্লগের ভিসিটর ও বোরিং হবে না। আচ্ছা, আপনার প্রশ্নের সহজ ও সঠিক উত্তর টা দিচ্ছি, একটি নির্দিষ্ট নিশ নির্বাচন না করে আপনি মাল্টি নিশ নিয়েই কাজ করুন, ফলাফল ভাল পাবেন।। এবং বেটার কিছু করতে পারবেন। এবং মজার ব্যাপার হচ্ছে আপনি মাল্টি নিশ নিয়ে ব্লগিং করলে অনেক দ্রুত আপনার ব্লগ রেঙ্ক করিয়ে ফেলতে পারবেন… আশা করছি আপনি আপনার প্রশ্নের সঠিক উত্তর পেয়েছেন… ❤❤

      Reply
      • কিন্তু বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ব্লগাররা ‘সিঙ্গেল নিশ’ পছন্দ করতে কেন বলে?😕 গুগল এ সম্পর্কে কি বলছে? নির্দিষ্ট টপিকের ওপর লেখা ওয়েবসাইটগুলোকে কি গুগল বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকে?

        Reply
        • এখানে অনেক গল্প আছে ব্রাদার, বাংলা ব্লগে সিঙ্গেল নিশ নিয়ে ব্লগিং করে একটা বেটার পজিশনে যাওয়াটা এক কথায় একটা দুঃস্বপ্ন! ভাই শুনুন বাংলা ব্লগ কে কোন ভাবেই ইংলিশ কন্টেন্ট এর সাথে কম্পেয়ার করতে যাবেন না। বাংলা আর ইংলিশ কন্টেন্ট এর মাঝে আকাশ – জমিন পার্থক্য। বাংলা’তে আপনাকেই সব কিছু ইমপ্লিমেন্ট করতে হবে নিজের ব্লগের সাথে।

          Reply

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *