কিভাবে একজন প্রফেশনাল ব্লগার (professional blogger) হয়ে উঠবেন!

কিভাবে-একজন-প্রফেশনাল-ব্লগার-professional-blogger-হয়ে-উঠবেন

ব্লগিং, এবং প্রফেশনাল ব্লগিং দুটি ভিন্ন যায়গা, এবং ভিন্ন বিষয়! একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠতে পারাটা মোটেও সহজ নয়, আবার খুব যে কঠিন তাও নয়। আপনি চাইলেই নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করে নিতে পারেন; এবং ধিরে ধিরে নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগারে রুপান্তিরিত করতে পারেন।

আমি প্রথমেই যেমন টা বলেছি এই জার্নি টা মোটেও সহজ নয়; তবে সে যাই হোক আমাদের ইচ্ছা শক্তির বাইরে তো আর কিছুই নয় তাই না। তো আজ এই আর্টিকেলে আপনার সাথে শেয়ার করবো, কিভাবে আপনি একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠতে পারবেন, এবং কি ভাবে কি, ও কোথা থেকে শুরু করবেন; বিস্তারিত গাইড লাইন।

তাহলে চলুন মেইন আর্টিকেলের দিকে মুভ করা যাক এখন, সাথেই থাকুন…

কিভাবে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠবেন?

অনেকেরই খুব মারাত্মক রকমের একটি ভুল ধারনা আছে, জথা; একজন প্রফেশনাল ব্লগার হতে হলে অবশ্যই দেখতে খুব সুন্দর একটি ব্লগ হতে হবে, যদি আমার ব্লগ টা দেখতে অনেক বেশি সুন্দর হয়, কেবল তবেই আমি প্রফেশনাল ব্লগার হতে পারব।

আপনার চিন্তা ভাবনার মাঝে যদি এমন কিছু থেকে থাকে তাহলে তাহাকে মাথা থেকে একদমই ছুড়ে ফেলে দিন, এবং আমার কথায় মন দিন, এবং বুঝার চেস্টা করুন।

একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠার পিছনে কোন ভাবেই সেই ব্লগ এর ডিজাইন নির্ভর করে না, যেটা নির্ভর করে তা হচ্ছে আপনার ব্লগের কন্টেন্ট; আপনি কেমন কন্টেন্ট লিখছেন কিভাবে লিখছেন; আপনার কন্টেন্ট এর গুনগত মান কেমন; বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এগুলাই নির্ভর করে।

কিন্তু আমাদের আসে পাসে লক্ষ্য করতে দেখা যায়, আমাদের প্রায় অনেকের মাঝেই কেবল এই চিন্তা ধারা টাই বেশি হয়ে থাকে, যদি আগে ব্লগের ডিজাইন ইউনিক করা যায়, নতুন বউ এর মত করে সাজিয়ে তোলা যায় তাহলেই নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে দাবি করা যায়।

হা, হা; কি মারাত্মক ধরনের বোকা বোকা চিন্তা রাইট, না দাদা আমি এটা নিজে বলছি না আমাকে এই নিয়ে অনেকেই এই প্রস্ন টা করেছে, এবং সবারই প্রায় এই একই টাইপ এর প্রস্ন। কিভাবে নিজেকে প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করা যাবে? এবং নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করতে গেলে ওয়েবসাইট এর ডিজাইন এর ভুমিকা কতটুকু?

তো চলুন এখন কিছু পয়েন্ট ভাগ করে সেই পয়েন্ট গুলি নিয়ে কথা বলা যাক, এবং আপনি এই পয়েন্ট গুলি ঠিক ভাবে বুজতে পারলে ও মেনে চললে অবশ্যই নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে দাবি করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট ডিজাইন !

আমি এখানে প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠবার কথা বলছি; আমি আমার এই আর্টিকেলর টাইটেলেই বলেছি কিভাবে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠতে পারবেন। এ কথাটা এ জন্যই বলছি অনেকেই নিউজ ভিত্তিক ওয়েবসাইট তৈরি করতে চায়, আবার অনেকে ম্যাগাজিন টাইপ এর ওয়েবসাইট তৈরি করতে চায়।

কিন্তু ব্লগ ওয়েবসাইট, এবং নিউজ ভিত্তিক ওয়েবসাইট, ও ম্যাগাজিন ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ আলাদা; আপনাকে প্রথমেই বুজতে হবে, আপনি আসলে কি টাইপ এর ওয়েবসাইট করতে চাচ্ছেন, আপনি যদি, নিউজ বা ম্যাগাজিন টাইপ এর ওয়েবসাইট করতে চান তাহলে তাহা সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয়।

কেননা নিউজ টাইপ বা ম্যাগাজিন টাইপ এর ব্লগ করতে চাইলে অবশ্যই ওয়েবসাইট এর থিম বা ডিজাইন এর ভুমিকা টা অনেক। কিন্তু যদি আপনার পারপাস শুধুই ব্লগিং করা হয়ে থাকে তাহলে তা সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয়।

এখন আপনি যদি শুধুই ব্লগিং করতে চান, তাহলে আপনাকে আপনার ব্লগ এর জন্য কেমন থিম বা কেমন ডিজাইন করতে হবে? ওয়েল তার আগে আমি আপনাকে আমাদের এই আর্টিকেল টি হাইলি রিকমেন্ড করছি, এই আর্টিকেল টি পড়ে আসলে আপনি বুজতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য কেমন ঠিক নির্বাচন করবেন ও আপনার ব্লগ এর জন্য কেমন থিম ব্যবহার করা উচিৎ হবে।

এখন আসি আপনি যদি ম্যাগাজিন বা নিউজ ভিত্তিক ব্লগ তৈরি করতে চান, সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রিমিয়াম থিম ব্যবহার করতে হবে, কারন নিউজ বা ম্যাগাজিন ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য তেমন ভাল কোন ফ্রী থিম নেই; না নেই বললে ভুল হবে, তবে যে সব ফ্রী থিম আছে সেগুলা ব্যবহার করলে কখনই একটা প্রফেশনাল ব্লগ এর ফিল পাওয়া যাবে না।

আপনার ব্লগ এর কন্টেন্ট!

একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠবার পিছনে সব থেকে বড় হাত হচ্ছে আপনার ব্লগ এর কন্টেন্ট এর। আপনার আর্টিকেলর এর গুনগত মানই নির্ভর করে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হয়ে উঠার পিছনে।

আপনার কনটেন্ট যদি মানসম্মত না হয়, আপনার কন্টেন্ট যদি হেল্পফুল না হয়, তাহলে সেই আর্টিকেলের কোন দামই নেই, আর যদি আর্টিকেলের দামই না থাকে তাহলে কখনই নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে দাবি করতে পারবেন না।

তো এ জন্যই আপনি যদি নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করতে চান, তাহলে আপনার কনটেন্ট এর দিকে ভাল করে ফোকাস করতে হবে, এবং আর্টিকেলর গুনগত মান ঠিক রাখতে হবে। জাতে করে আপনার ব্লগ এর কনটেন্ট গুলি হেল্পফুল হয়। এবং আপনার ব্লগ এর আর্টিকেলের ধরন যেন এমন হয়, যাতে করে আপনার আর্টিকেল পড়ে সবাই বুজতে পারে, আপনি ঠিক কি, বা কোনটা বুঝাতে চেয়েছেন।

লেখার ধরন!

ভাই রে ভাই, কি বলবো আমি এমন নামি দামি অনেক কে চিনি, তাদের লেখার যে “শ্রি” মানে অনেক সময় আপনার বুজতে ঠিক এতটাই কস্ট হবে, আপনি বুজতে পারবেন না যে, আপনি কি কোন পত্রিকা পরছেন নাকি কোন ব্লগের আর্টিকেল পড়ছেন।

তো আমার উপরের এই সংগা টা দেওয়ার উদ্দেশ্য এটাই, আপনার ব্লগ পড়ে যেন আপনার ভিজিটর দের এটা না মনে হয়, তারা কোন পত্রিকা পড়ছে; এমন ভাবে নিজের ব্লগ এর আর্টিকেল গুলি লিখুন যাতে খুব সহজেই আপনার ভিজিটর রা বুজতে পারে আপনি কি বুঝাতে বা কি বলতে চেয়েছেন।

মানে এক কথায় সহজ ও সুন্দর পষ্ট ভাষায় আর্টিকেল লেখার চেস্টা করুন। আর একটু বুঝিয়ে বলি, মানে আপনার ব্লগের আর্টিকেল পড়ে যাতে এটা না মনে হয়, আমি কোন পত্রিকা পড়ছি, বা আমি এটা পড়ে তো কিছুই বুজতে পারলাম না। মোড়াল হচ্ছে সবার কথা মাথায় রেখে নিজের মত করে আর্টিকেল লিখুন, যাতে করে খুব সহজেই সবাই বুজতে পারে।

নিয়মিত হওয়া!

ওই আজ একটা আর্টিকেল লিখলেন এবং কয়েক সপ্তাহ পরে আর একটা আর্টিকেল লিখলেন, এই ভুল টা মোটেও করা চলবেনা। নির্দিষ্ট একটা সময় ঠিক করে নিতে হবে, এবং সেই অনুপাতেই ব্লগে আর্টিকেল লিখে যেতে হবে।

এখন আপনি আমাকে প্রস্ন করতে পারেন, নিয়মিত যে ব্লগে আর্টিকেল লিখব, এতো আর্টিকেল লেখার আইডিয়া পাবো কিভাবে ? হুম চিন্তার কোন কারন নেই, আপনি আমাদের এই আর্টিকেল টা পড়ে আসুন তাহলে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে আপনার ব্লগে আর্টিকেল লেখার জন্য নতুন নতুন আইডিয়া খুজে পাবেন।

আপনি যদি আপনার ব্লগে নিয়মিত না হন, তাহলে আপনার ব্লগের ভিজিটর দের সাথে আপনার বন্ডিং টা খুব বেশি ভাল হবে না, এবং আপনার ব্লগের ভিজিটর রা আপনার ব্লগ এর উপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলতে পারে। কেননা আপনি তো নিয়মিত না আপনার ব্লগে, আপনি নিয়মিত ব্লগে আর্টিকেল লিখছেন না; ফলে আপনার ভিজিটর রাও নিয়মিত আপডেট পাচ্ছে না।

সব কিছু মিলিয়ে হচ্ছে, আপনি নিয়মিত হলে আপনার ব্লগের ভিজিটর রাও নিয়মিত হবে এবং তখন আপনি আস্তে আস্তে বুজতে পারবেন আপনি আসলেই এখন একজন প্রফেশনাল ব্লগার হতে চলেছেন!

আপনার ব্লগের ভিজিটর দের সাথে কানেক্টেড থাকা

অনেকেই দেখি ব্লগে কমেন্ট করলে আপ্রুভ তো করে কিন্তু কোন ভিজিটর দের কোন প্রশ্নের তেমন রিপ্লাই করে না। হুম, আপনি যদি নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করতে চান তো অবশ্যই আপনি এই ভুল টা করবেন না।

সব সময় আপনার ব্লগ রাইডার দের করা প্রশ্নের রিপ্লাই দিন, এবং তাদের সমস্যার সমাধান দিন, তাহলে দেখবেন আপনার নিজেকে প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করা লাগবে না। আপনার ব্লগের ভিজিটর রাই আপনাকে একজন মানসম্মত প্রফেশনাল ব্লগার তৈরি করে দিবে।

আমাদের শেষ কথা

দেখুন যে যার যায়গা থেকেই প্রফেশনাল কেননা, না আমি পারব আপনার মত করে চিন্তা ভাবনা করে লিখতে, না আপনি পারবেন আমার মত চিন্তা ভাবনা করে লিখতে। তবে বিষয় হচ্ছে অনেকে শুধু ওয়েবসাইট এর ডিজাইন, হাবি, জাবি, নিয়ে পড়ে থাকে।

ফলে নিজেকে সেই ভাবে বুজতে পারে না, এবং নিজেকে বুজতে না পারার বার্থটায় নিজেকে কখনও একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবেও দাবি করতে পারে না। তা সব শেষ কথা হচ্ছে এটা আপনি নিজেকে বুঝুন এবং তারপর উপরে বর্ণিত সব গুলি নিয়ম ভাল করে নিজের ব্লগের উপর আপ্লাই করে দেখুন।

দেখবেন ভেতর থেকেই প্রফেশনাল প্রফেশনাল ফিল পাবেন, আর এটাই মোক্ষম বিষয়, আপনার নিজের কাজ যদি আপনার ভাল লাগে তাহলে ধরে নিবেন আপনি ১০০% ভাল করছেন। এবং একটা পর্যায়ে গিয়ে দেখবেন নিজেকে একজন প্রফেশনাল ব্লগার হিসাবে তৈরি করে ফেলেছেন নিজের অজান্তেই।

তো এই ছিল আজকের আর্টিকেল, এই আর্টিকেল সম্পর্কে আপনার কিছু জানার বা আপনার কোন মতামত থাকলে, নিচে আপনার মতামত ড্রপ করতে পারেন, ধন্যবাদ এতো সময় সাথে থাকার জন্য টা, টা

“হ্যাপি লার্নিং”

ইমেজ ক্রেডিট; Plann Via Pexels

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করার চেষ্টা করি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *