ডোমেইন কেনার পূর্বে যে বিষয় গুলি মাথায় রেখে ডোমেইন কেনা উচিৎ!

ডোমেইন-কেনার-পূর্বে-যে-বিষয়-গুলি-মাথায়-রেখে-ডোমেইন-কেনা-উচিৎ

আপনার ওয়েবসাইটের সব কিছুই ঠিক আছে, আপনি নিয়মিত আপনার ব্লগে আর্টিকেল ও লিখে যাচ্ছেন — বাট গল্প অন্য জায়গাতে গিয়ে আকটে গিছে ; যেমন আপনার ব্লগের সব কিছুই ঠিক আছে কিন্তু আপনার ব্লগের ডোমেইন নেম টা কিছুটা অদ্ভুত টাইপ এর হয়ে গেছে যার ফলে আপনার ব্লগের ডোমেইন নেম অনেকের পক্ষেই মনে রাখা সম্ভব না।

হুম,যদি গল্পটা এমন হয় তাহলে সত্যি কপালে অনেক দুঃখ আছে, হা,হা,হা সিরিয়াসলি নেওয়ার দরকার নেই; আপনার কপালে দুঃখ নেই ঠিকই কিন্তু, আপনার ব্লগের ডোমেইন নেম যদি এরকম অদ্ভুত টাইপ এর হয়ে যায়, সেখত্রে আপনাকে কিছু প্রবলেম এর সম্মুখীন হতে, হতে পারে। হ্যাঁ কি,কি প্রবলেম এর সম্মুখীন আপনাকে হতে হবে এই বিষয়ের উপর বিস্তারিত আলোচনা করবো + কিভাবে আপনি আপনার ব্লগের বা ওয়েবসাইট এর জন্য একটি পারফেক্ট ডোমেইন নেম চুজ করবেন সেই বিষয়ের উপর ও আপনার সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো… তাহলে চলুন মেইন আর্টিকেলর দিকে ডুব দেওয়া যাক!!

ডোমেইন কি?

ডোমেইন হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট এর ঠিকানা, আচ্ছা পরিস্কার করে বুঝিয়ে বলছি, ধরুন আপনি যে লোকেশনে থাকেন আমি যদি সেই লোকেশনে গিয়ে আপনাকে খুজি তাহলে কি আমি আপনাকে খুঁজে পাবো? হুম, মেবি না, আপনাকে খুঁজে পেতে হলে আমার আপনার একজ্যাক্ট লোকেশন জানতে হবে, আর যখনি আমি আপনার একজ্যাক্ট লোকেশন জানতে পারবো তখন নিশ্চয়ই আমি আপনাকে খুঁজে পাবো।

ব্যাপার টা এক্সজেক্টি এরকমই, ডোমেইন অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইট এর একজ্যাক্ট লোকেশন বা ঠিকানাও বলতে পারেন। যদি আমি আপনার ওয়েবসাইট এর ঠিকানা জানতে পারি, বা আপনার ওয়েবসাইটের ঠিকানা আমার এক্সজেক্ট জানা থাকে, তাহলে আমার আপনার ওয়েবসাইট আক্সেস করতে একটুও প্রবলেম হবে না, আমার যখন ইচ্ছা আমি ঠিক তখন আপনার ওয়েবসাইটে আক্সেস করতে পারবো ও আমার দরকারি ইনফরমেশন গুলি আপনার ওয়েবসাইট থেকে পড়তে পারবো।

তাহলে বিষয় টা কিছুটা ক্লিয়ার হল তো ডোমেইন আসলে কি? হুম, আরও কিছুটা বাকি আছে বিস্তারিত বলছি। আমি আপনাকে যেমন টা বলছি আমার কাছে যখনি আপনার এক্সজেক্ট লোকেশনের ঠিকানা থাকাবে কেবল তখনই আমি আপনার সাথে কন্টাক্ট করতে পারবো, ডোমেইন এর ক্ষেত্রেও বিষয় টা কিছুটা এমন তবে এক্সজেক্টলি এমন নয়।

কিভাবে? বলছি, আপনার কাছে যদি আমার ওয়েবসাইটের আইপি অ্যাড্রেস থাকে তাহলে আপনি অনায়াসে আমার ওয়েবসাইট আক্সেস করতে পারবেন তার জন্য আপনার আমার ডোমেইন নেম জানার মোটেও প্রয়োজন নেই। এই যেমন দেখুন এটা আমার ওয়েবসাইটের “আইপি অ্যাড্রেস — 104.27.129.138” এখন আপনিই বলুন আপনার পক্ষে কোনটি মনে রাখা বেশি সহজ (LARNBD নাকি 104.27.129.138 এই আইপি টি? অবশ্যই ডোমেইন নেম রাইট? হুম আমি জানি রাইট আর এ জন্যই মুলত আমাদের ডোমেইন নেম এর প্রয়োজন পড়ে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে।

কেননা এতো বড় আইপি অ্যাড্রেস তো আর মনে রাখা সম্বব না তাই না। তাহলে এখন ভাবুন আপনি একটি ডোমেইন নেম নির্বাচন করলেন আপনার ব্লগ এর জন্য। আর সেই কাঙ্খিত ডোমেইন এর আইপি অ্যাড্রেস এর থেকেও যদি ভয়ঙ্কর রকমের বড় বা বাজে হয়ে থাকে আপনার ডোমেইন নেম, তাহলে তাহা কিভাবে আপনার ব্লগ এর পাঠক গন মনে রাখবে। আর ঠিক এ জন্যই একটি ব্লগ ওয়েবসাইটের জন্য ডোমেইন নেম নির্বাচন করবার পূর্বে অনেক বিষয় মাথায় রেখে তারপর ডোমেইন নেম নির্বাচন করতে হয়!

ডোমেইন নেম নির্বাচন করার পূর্বে যে বিষয় গুলি মাথায় রেখে ডোমেইন নেম নির্বাচন করতে হবে?

তাড়াহুড়া করে একটি ডোমেইন নেম নির্বাচন করে নিলেই তো হয়, ডোমেইন এ কি যায় আসে আমার কাছে অনেক বড়লোক বড়লোক টাইপ এর কন্টেন্ট আছে, আমি আমার ব্লগ এর জন্য ভয়ঙ্কর রকম বাজে ডোমেইন নেম চুজ করলেও তাতে আমার কিছু যায় আসে না! হা,হা,হা ব্রাদার প্রথমেই বলি আপনার চিন্তা ভাবনা যদি এই টাইপ এর হয়ে থাকে তাহলে ইহাকে এখনি মাথা থেকে নামিয়ে ফেলুন, না হলে পরে আপনাকে অনেক বেশি রকম বাজে ভাবে পস্তাতে হতে পারে।

কিভাবে? বুঝিয়ে বলছি!

ধরে নেওয়া যাক, আপনার কাছে প্রচুর কন্টেন্ট আছে, এবং আপনি আপনার কন্টেন্ট এর জোরেই একটি একটি ব্লগ তৈরি করার কথা চিন্তা করলেন, হুইচ ইজ ভেরি গুড ডিসিশন। বাট আপনি কান্ড করে বসলেন অন্য যায়গাতে। মানে আপনার কাছে ভালো ভালো কন্টেন্ট তো আছে কিন্তু আপনি আপনার ব্লগ এর জন্য এমন একটি নাম নির্বাচন করলেন যা মনে রাখা তো দুরের কথা উচ্চারন করতে গিয়েই দাঁত ভাঙ্গার অবস্থা।

এখন এমন অবস্থায় আপনি চিন্তা করুণ এজ এ পাঠক, অর্থাৎ আপনি আপনার নিজের ব্লগের পাঠক হিসাবে কিছু সময় ভাবুন এবং দেখুন আপনার সাথে কি হচ্ছে। আপনার ওয়েবসাইটের নাম মনে রাখতে গিয়ে আপনি নিজের সব কিছু ভুলতে বসেছেন না তো? বা এমন হচ্ছে নাতো আপনার নিজের ই নিজের ব্লগ এর বানান মনে রাখতে পাগল প্রায় অবস্থা। এবার ভাবুন যদি আপনার নিজের সাথে এমন হয় তাহলে আপনার ব্লগের পাঠকের সাথে কি হতে পারে?

কি হবে পারে, আমি বলছি!

যতই আপনার ব্লগে অনেক বেশি ভালো কন্টেন্ট থাকুন না কেন, তাতে খুব বেশি লাভ হয়তবা হবে না। কেননা যদি আপনার ব্লগের পাঠক আপনার ব্লগের নাম টাই ঠিক ভাবে মনে না রাখতে পারে তাহলে সে কিভাবে পরবর্তীতে আপনার ব্লগে আক্সেস করবে, বলুন?

হ্যাঁ, যদি আপনি কি ওয়ার্ড রিসার্চ করে আর্টিকেল লেখেন তাহলে অবশ্য আপনি আপনার ব্লগের জন্য ট্রাফিক ঠিকই পাবেন, কিন্তু কখনই বিষয় টা এমন হবে না যে আপনি আপনার ব্লগ কে একটি ব্রান্ড এ পরিনিত করতে পারবেন। কেননা অরগানিক ট্রাফিক আসবে শুধু তাদের কাজের দরকারে আর্টিকেল পড়া শেষ এবং তাদের কাজ ও শেষ। হ্যাঁ এখন ধরে নেওয়া যাক আপনার ব্লগে কন্টেন্ট এর মান খুবই ভালো এবং আপনার ব্লগে যে পাঠক এসেছে তার আপনার কন্টেন্ট এর গুনগত মান খুবই ভালো লেগেছে – এবং সে পরবর্তীতে আপনার ব্লগে আবার ও আসতে চায় ও আপনার ব্লগের কন্টেন্ট এর প্রেমে পড়তে চায়। বাট দুক্ষের বিষয় আপনার ব্লগ এর নাম, অর্থাৎ আপনার ওয়েবসাইটের নাম টাই তার মনে নেই, বা মনে থাকলেও পরিস্কার ভাবে মনে নেই।

তখন কি হবে বলুন কি আর হবে, আপনি হয়তবা সেই ভিসিটর বা পাঠক কে মিস করে যাবেন। আর এভাবেই আপনার সাথে প্রতিনিয়ত এরকম হতে পারে, (বিকজ অফ ইয়োর বাজে ডোমেইন নেম) তাই আবার ও বলছি আপনার ব্লগ ওয়েবসাইট এর জন্য ডোমেইন নির্বাচন করার পূর্বে অনেক গুলি বিষয় মাথায় রেখে তারপর গিয়ে ডোমেইন নেম নির্বাচন করুণ।


আচ্ছা এখন আসি ডোমেইন নেম নির্বাচন করবার পূর্বে যে বিষয় গুলি মাথায় রেখে একটি ডোমেইন নেম নির্বাচন করা উচিৎ…


নিশ

আপনি যদি নির্দিষ্ট কোন একটি টপিক নির্বাচন করে থাকেন আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করতে তাহলে অবশ্যই অবশ্যই আপনার নিশ রিলেটেড কি-ওয়ার্ড থেকেই ডোমেইন নেম নির্বাচন করতে হবে। এতে করে হবে কি আপনি প্রচুর অরগানিক ট্রাফিক পাবেন শুধু মাত্র আপনার ডোমেইন নেম এর জন্যই। তাই যদি আপনি কোন নিশ রিলেটেড ব্লগ ওয়েবসাইট করতে চান তাহলে ডোমেইন নেম নির্বাচন করার পূর্বে অবশ্যই কিছুটা রিসার্চ করুণ, এবং আপনার নিশ রিলেটেড কি-ওয়ার্ড/ বা নিশ রিলেটেড সিমিলার কি–ওয়ার্ড এর মাঝে থেকে ডোমেইন নেম চুজ করুণ।

বড় চিন্তা ভাবনা

হুম,আপনি আপনার ব্লগ ওয়েবসাইট কে একটি অন্য মাত্রায় নিয়ে যেতে চান! ব্রাদার তাহলে আপনাকে অবশ্যই অবশ্যই আপনার ব্লগ এর জন্য একটি ইউনিক ও ইউজার ফ্রেন্ডলি ডোমেইন নেম চুজ করতে হবে। যেমনঃ আপনার ডোমেইন নেম টা সহজেই সবাই মনে রাখতে পারে, ছোট ও সুন্দর হয়, আপনার চুজ করা ডোমেইন এর যেন একটি মিনিং থাকে এবং খেয়াল রাখবেন আপনার চুজ করা ডোমেইন নেম এর উচ্চারন বা বানান করতে গিয়ে যেন দাঁত না ভেঙ্গে যায়।

আবার এখানে কথা আছে, ছোট ডোমেইন নেম চুজ করতে হবে তার মানে আবার এটা নয় যে ভয়ঙ্কর সুন্দর টাইপ এর কিছু আপনার মাথায় এল এবং আপনি তাহাকেই নিজের ডোমেইন নেম হিসাবে চুজ করে বসলেন। আমি উপরে যেমন টা বলছি, হ্যাঁ ছোট ডোমেইন নেম চুজ করতে হবে ঠিকই, কিন্তু সেই নামের যেন একটা মানে থাকে বা আপনার চুজ করা সেই নাম টি যেন ইউজার ফ্রেন্ডলি হয় ও সহজে সবাই মনে রাখতে পারে। আর যদি আপনি আপনার ব্লগ এর জন্য এমন একটি ডোমেইন নেম পেয়ে যান, (দেন গুড টু গো) নিজের লক্ষে ঝাপিয়ে পড়ুন ও আপনার প্রাপ্য টা হাসিল করুণ।

কই যানওয়েট করুণ এখনো গল্প বাকি আছে ব্রো!

ডোমেইন নেম চুজ করার পূর্বে কি,কি বিষয় গুলা মাথায় রাখতে হবে এটা তো বুজতে পারলেন কিন্তু এখনো তো আরও কিছু জানবার বাকি আছে ব্রাদার! সেগুলা শুনুন জানুন বুঝুন আপনার না হয় যান, হি,হি,হি…

সস্তায় ডোমেইন নেম

বাজে ভীষণ বাজে তারপর আসে এই সস্তায় ডোমেইন কিনে ফেলার পরিকল্পনা! হুম কথা সত্য ব্রাদার আপনি লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন আপনাকে এমন অনেকেই অফার করবে এটার সাথে এটা ফ্রী অমুক টমুক ইত্যাদি,ইত্যাদি। ভুলেও এসকল প্রলোভন দেখানে কম্পানির পাতা ফাদে আপনি পা দিবেন না! যদি দিয়ে বসেন তাহলে ইন ফিউচার আপনাকে অনেক বড় ঝামেলায় পড়তে হতে পারে।

কি রকম ঝামেলায় পড়তে হতে পারে?

যেমন আপনি সস্তায় পেয়ে একটি ডোমেইন কোন একটি কম্পানি থেকে কিনে নিলেন তারপর আস্তে আস্তে সব কিছু ভালো হতে শুরু করল এবং আপনার ওয়েবসাইটে কম বেশি ট্রাফিক ও আসতে শুরু করল। নাও টাইম টু মুভ ওন — এখন আপনি চাচ্ছেন আপনার হোস্টিং পরিবর্তন করতে। কিন্তু আপনি তারপরই পড়লেন সব থেকে বড় ঝামেলায়। আপনি শুনলেন আপনি যে কম্পানি থেকে ডোমেইন নিয়েছেন, আপনি তাদের হোস্টিং ছাড়া অন্য কোন হোস্টিং ব্যবহার করতে পারবেন না + আপনাকে তারা ডোমেইন নেম অন্য কোথাও ট্রান্সফার করে নিতেও দিবে না। তাহলে ভাবুন তখন আপনি কি ধরনের বাজে সিচুয়েশনে পড়বেন?

তাই ভুলেও এসব কমদামি ও লোভনীয় অফার দেখে ঝাপিয়ে পড়বেন না, আর হ্যাঁ যদিওবা এসকল কম দামি অফার ক্রিত ডোমেইন কিনতে চান, তাহলে তাদের কাছে অবশ্যই ডোমেইন কেনার পূর্বে জিজ্ঞাসা করে নিন, তারা আপনাকে ডোমেইন এর সম্পূর্ণ কন্ট্রোল পেনেল দিচ্ছে কিনা + আপনি যদি ইন ফিউচার আপনার ডোমেইন নেম ট্রান্সফার করতে চান তখন তারা তা করতে দিবে কিনা? যদি বলে হ্যাঁ দিবে কিন্তু তাদের কিছু কন্ডিশন আছে, তাহলে তখনই তাদের থেকে কয়কশ হাত দূরে সরে আসুন এবং এই অফার ও লোভনীয় ছাড়ে ডোমেইন কিনা থেকে বিরত থাকুন।

তো সব মিলিয়ে ছিল এই, আপনি যদি ডোমেইন কিনবার পূর্বে এই বিষয় গুলি মাথায় রেখে ডোমেইন কিনে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি জিতে যাবেন।… হ্যাপি লার্নিং ❤❤

ইমেজ ক্রেডিট; By Jireh Gibson Via Pixabay.Com

Share:

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করার চেষ্টা করি।

Give a Comment