ওয়ার্ডপ্রেস বনাম ব্লগার,বেস্ট কি? (সুভিদা এবং অসুভিদা)

ওয়ার্ডপ্রেস বনাম ব্লগার, এই ওয়ার্ড টা অনেক পরিচিত রাইট? আমি অনেকেই দেখি ব্লগিং বনাম ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে বলতে, বাট বিস্তারিত আলোচনা করতে দেখিনি। এ জন্যই আমি আজ চেষ্টা করবো ওয়ার্ডপ্রেস বনাম ব্লগার নিয়ে পরিপূর্ণ একটি ধারনা দিতে, সাথেই থাকুন।

ওয়ার্ডপ্রেস বনাম ব্লগার (পার্থক্য কি)

বর্তমান সময়ের সব থেকে বেশি জনপ্রিয় দুইটি “CMS” ওয়ার্ডপ্রেস এবং গুগল এর ব্লগার। “CMS” কি? কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। তাহলে এখন ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কথা বলা যাক, তারপর গুগল এর ব্লগার নিয়ে বিস্তারিত বলবো।

#ওয়ার্ডপ্রেস

এখন এই সময়ে পপুলার যত ব্লগ আছে সবই দেখবেন ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি করছে। কিন্তু কেন? তার অনেক গুলি কারন আছে, ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে কোন রকম ঝামেলা হয় না। ওয়ার্ডপ্রেস আপনার কোন কোডিং স্কিল না থাকলেও আপনি খুব সহজেই আপনার ওয়েবসাইট ডেভেলপ করতে পারবেন এবং এরকম আরও অনেক সুযোগ সুভিদা আছে।

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাবহারের সুভিদা ও অসুভিদা

সুভিদাঃ

#ওয়েবসাইট তৈরি

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে ওয়েবসাইট তৈরি করতে আপনার কোনো রকম কোডিং স্কিল জানার প্রয়োজন নেই, বা এই ভাবেও বলা যায় আপনি কোনো রকম এক্সপিরিয়ান্স ছাড়াই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেলতে পারবেন।

#এসিও

এসিও করার জন্য খুব ভালো ভালো প্লাগিন পেয়ে যাবেন, যার ফলে আপনি এসিও তে খুব বেশি এক্সপার্ট না হলেও, প্লাগিন এর সাহায্যে এসিও করিয়ে নিতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য। আমার অনেক বেশি পছন্দের একটি প্লাগিন এর নাম উল্লেক করছি ‘Yoast SEO’ এই এসিও প্লাগিন টি আপনাকে যথেষ্ট পরিমানে হেল্প করবে, আপনার ওয়েবসাইট টিকে ভালো করে এসিও করার জন্য।

#ইন্টারফেস

খুব সহজ ইন্টারফেস আপনি নতুন হয়ে থাকলেও আপনার একটুও বুজতে প্রবলেম হবে না, কোথায় কি এবং কিভাবে কি করতে হবে। আপনি অনায়াসে ওয়ার্ডপ্রেস এর সাথে মানিয়ে নিয়ে পারবেন।

#কাস্টমাইজেশন

এখানে বলার মতো আসলে কিছু নেই, এক কথাই আপনি আপনার ওয়েবসাইট কে নতুন বউএর মতো করে সাজিয়ে তুলতে পারবেন। কোনো লিমিটেশন নেই, আপনি যেভাবে খুশি সেভাবে কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন। তবে এডভান্স লেভেল এর কাস্টমাইজেশন করার জন্য অবশ্যই আপনাকে কোডিং জানতে হবে।

#থিমস

থিম নিয়ে আপনার চিন্তা করার কিছু নেই, আপনি যেমন থিম চান তেমন থিম পেয়ে যাবেন তাও আবার ফ্রীতে। তবে অনেক পেইড থিম ও আছে, ওই থিম গুলার ভিতরে অনেক প্রিমিয়াম ফাংশান ইনক্লুড করা থাকে। প্রথম অবস্থায় আপনার পেইড থিম এর প্রয়োজন পড়বে না, আপনি যখন এডভান্স লেভেল এর হয়ে যাবেন তখন পেইড থিম ব্যবহার করাতাই উত্তম মনে করি। কারন ফ্রী থিম গুলা কাস্টমাইজেশন করা খুব ইজি আর পেইড থিম গুলি কাস্টমাইজেশন করা কিছুটা ট্রিকি।

অসুভিদাঃ

#হোস্টিং

আপনাকে প্রতি মাসে হোস্টিং এর জন্য একটা টাকা দিতে হবে। কত টাকা দিতে হবে এটা নির্ভর করে আপনার উপর আপনি যেমন হোস্টিং নিবেন আপনার খরচ টাও ঠিক তেমন পড়বে।

#সিকিউরিটি

যদিও ওয়ার্ডপ্রেস অনেক সিকিউর, তারপরেও অনেক সময় আপনার সাইট হ্যাক হয়ে যেতে পারে, তবে চিন্তার কিছু নেই, ওয়ার্ডপ্রেস সিকিউর করার জন্য অনেক প্লাগিন আছে, আপনি সে সকল প্লাগিন ব্যবহার করে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট টি সিকিউর করে নিতে পারবেন।

#ব্লগার

ব্লগার গুগল এর একটি ফ্রী টুলস, ওয়ার্ডপ্রেস এর মতো ব্লগার এ আপনাকে হোস্টিং এর জন্য কোনো টাকা দিতে হবে না। আপনাকে শুধু একটি কাস্টম ডোমেইন নিতে হবে এবং ব্লগার এর সাথে কানেক্ট করে দিতে হবে। ব্লগার আপনাকে সব কিছুই ফ্রীতে দিয়ে থাকে, অর্থাৎ আপনি যদি এই মুহূর্তে একটি কাস্টম ডোমেইন না নিতে চান তাহলে আপনি ব্লগার এর থেকে একটি সাব ডোমেইন ফ্রীতে নিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।

ব্লগার ব্যাবহারের সুভিদা ও অসুভিদা

সুভিদাঃ

আপনি কোনো রকম কোনো ইনভেস্ট ছাড়াই একটি ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ ফ্রীতে তৈরি করে ফেলতে পারবেন। আপনার শুধু প্রয়জন হবে একটি ইমেল আইডির, আপনি একটি ইমেল দিয়ে ১০০ টা ফ্রী ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। যার জন্য আপনাকে একটি টাকাও খরচ করতে হবে না।

#সিকিউরিটি

বুজতেই পারছেন ব্লগার গুগল এর প্রডাক্ট তো আপনার সিকিউরিটি নিয়ে একটুও চিন্তা করতে হবে না। তবে যদি আপনার ইমেল আইডি টি হ্যাক হয়ে যায় তখন প্রবলেম হতে পারে। এছাড়া ব্লগার এর সিকিউরিটি নিয়ে আর কোনো প্রবলেম নেই।

অসুভিদাঃ

#ইন্টারফেস

পার্সোনালই আমার কাছে অনেক টা ঝামেলার মনে হয় ব্লগার এর ইন্টারফেস। তবে খুব বেশি প্রবলেম ও হয় না ব্লগার এর ইন্টারফেস এর সাথে মানিয়ে নিতে। কিন্তু আমার মনে হয় ব্লগার এর থেকে ওয়ার্ডপ্রেস এর ইন্টারফেস টা বেশি ভালো।

#কাস্টমাইজেশন

আপনি চাইলেই ব্লগার এ খুব বেশি কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন না, কাস্টমাইজেশন করার জন্য আপনার ভালো কোডিং নলেজ থাকতে হবে। অন্যথায় আপনি গুগল এর ব্লগার এ খুব বেশি কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন না।

#আপডেট

এই কয়েক বছর কেটে গেলে ব্লগার এর কোনো আপডেট আসে না। অন্নদিকে ওয়ার্ডপ্রেস এ প্রায় প্রতি ৬ মাস পর পর আপডেট আসে। তবে গুগল এর ব্লগার এর ক্ষেত্রে এই আপডেট টা খুব বেশি মেটার করে না। হয়তবা গুগল ব্লগার নিয়ে ভালো কিছু ভাবছে, আর এই জন্য আপডেট ও লেট করে দিচ্ছে, বা ইন ফিউচার দিবে।

#থিমস

ব্লগার এ আপনাকে ডিফল্ট কিছু থিম দেওয়া হয়ে থাকে। যে থিম গুলি খুব বেশি প্রিমিয়াম ফিল দেয়না, তবে থার্ড পার্টি অনেক থিম পেয়ে যাবেন ব্লগার এর জন্য। ব্লগার এর থিম গুলা দুইটি ভার্সন এ পাওয়া যায় একটি ফ্রী এবং একটি পেইড। তবে কিছু থিম আছে যেগুলা শুধুই পেইড ভার্সন তার কোন ফ্রী ভার্সন নেই। তবে গুগলে সার্চ করলে ব্লগার এর জন্য ও অনেক ভালো ভালো থিম পাওয়া যায়।

#এসিও

ব্লগারে আপনাকে এসিও ম্যানুয়ালি করতে হবে, আপনি কোন রকম কোন থার্ড পার্টি প্লাগিন ব্যবহার করতে পারবেন না। আপনাকে সব কিছুই নিজে থেকেই করতে হবে। ব্লগার এ ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানিয়ে রেঙ্ক করাতে একটু বেগ পেতে হয়। তবে আপনার কনটেন্ট ভালো হলে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট ভালো রেঙ্ক করবে, এটাই স্বাভাবিক সে আপনি ব্লগার এ সাইট বানান আর ওয়ার্ডপ্রেস এ। আপনার ওয়েবসাইট এর কিং আপনার কনটেন্ট।

আপনার জন্য বেস্ট কি ?

আপনার চাহিদার উপর নির্ভর করছে আপনার জন্য বেস্ট কি? আপনি যদি একদম নতুন হয়ে থাকেন তাহলে আপনি বলবো আপনার জন্য গুগল এর ব্লগার বেস্ট হবে। কেননা প্রথম অবস্থায় আপনার টাকা পয়সা কিছু খরচ করতে হবে না। আপনি ফ্রীতেই সব কিছু পাচ্ছেন, পরবর্তীতে আপনি এডভান্স লেভেলে গেলে তখন ওয়ার্ডপ্রেস এ মুভ করতে পারেন।

শেষ কথা আপনি নতুন হলে আপনার জন্য ব্লগার বেস্ট, এবং একটু এডভান্স হলে ওয়ার্ডপ্রেস বেস্ট। ওয়ার্ডপ্রেস এবং ব্লগার নিজেদের জায়গায় দুইটায় বেস্ট। শুধু আপনাকে বুজতে হবে আপনার চাহিদা কি এবং আপনার জন্য বেস্ট হতে পারে কোনটি।

ইমেজ ক্রেডিট; By Andrea Piacquadio Via Pexels

শেয়ার করুন:

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা, আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলা আপনার সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করি...

আপনার মতামত শেয়ার করুন...