কিছুতেই কি আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারছেন না? কিন্তু কেন – উত্তর জেনে নিন!

অনলাইন-ইনকাম

অনলাইন ইনকাম! ইম, কোন কিছুতেই কি আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারছেন না? ওয়েল আপনি প্রচণ্ড হার্ড ওয়ার্ক করছেন তবুও কি আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারছেন না? কিন্তু কেন, আসল গল্প টা কোথায়?

মারাত্মক মটিভেট আপনি – সব কিছু একদম মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে দিয়ে চিন্তা করলেন হ্যাঁ সবাই পারলে আমি কেন পারব না। যা আছে কপালে শুরু করে দেওয়া যাক – তারপর দেখা যাবে। বাট, ওয়েট, ওয়েট আপনি কি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পেরেছেন। ওয়েল যদি আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পেরে থাকেন, বা অলরেডি করছেন – তাহলে অবশ্যই নিচে কমেন্ট সেকশনে জানাতে ভুলবেন না।

এখন আসি আপনার বিষয়ে, মানে আপনি কোন কিছুতেই – অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারছেন না। হুম, নিশ্চয়ই আপনি জানতে চান আপনার ইনকাম না হবার পিছে ভুল গুলি কি,কি? কি জানতে চান তো? ইয়া, তবে সম্পূর্ণ আর্টিকেল এর সাথে থাকুন ও জেনে নিন ঠিক কেন বা কি কারনে আপনার অনলাইন থেকে ইনকাম করার স্বপ্ন কখনই সত্য হয় না।

সব সময় অনলাইন থেকে ইনকাম এর ভুত মাথায় রাখা!

আমার দেখা মতে আমার কাছের’ই এমন অনেক আছে, যারা এই অনলাইন ফিল্ডে আসছেই শুধু অনলাইন থেকে ইনকাম করবার জন্য! হ্যাঁ, হ্যাঁ আপনার মতই আমার মাথায় প্রস্ন আসে, তাদের কি কোন কাজের স্কিল আছে?

না, তাদের কাজের কোন স্কিল নাই। যা আছে তা হচ্ছে শুধু ফাজলামো। ফাজলামো বলছি তার পিছে অবশ্য অনেক বড় গল্প রয়েছে। এই যেমন ইউটিউবে এমন অনেক ইউটিউবার রয়েছে যাদের কাজ হচ্ছে, রাতারাতি অনলাইন থেকে কিভাবে ইনকাম করা পসেবল এর বিষয়ের উপর আপনাকে এক বিস্তারিত ব্যাখ্যা করে আপনার টাইম ও অনলাইন ক্যারিয়ার এর বারোটা বাজানো।

এবং স্বাভাবিক ভাবেই, কিছু সংখ্যক মানুষ সেই সকল ইউটিউবার দের ভিডিও দেখে নিজেকে সব জান্তা সামসের টাইপ এর এক বিজ্ঞ ব্যক্তিত মনে করে, অনলাইনে একটি কাজে ঝাঁপিয়ে পড়া।

বাট এই গল্পের শুরুটা যতটা ভাল, শেষ টা কিন্তু এরকম হয় না – শেষ টা হয় তেতো, সব শেষে আপনাকে হতাশ হয়েই অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার বিল্ড করার স্বপ্ন কে মাটি চাপা দিতে হয়।

আসলে, ব্যাপার কি- এই অনলাইনে ইনকাম করার ভুত’ই আপনাকে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার বিল্ড করতে দেয় না। উপরের গল্প থেকে কিছুটা হলেও আশা করি বুজতে পেরেছেন তা।

এই জন্ন’ই আপনার অনলাইনে ইনকাম না হবার পিছে সব থেকে বাজে যে কারন টা, তা হচ্ছে সব সময় অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার ভুত। এই চিন্তা যদি সাইডে রেখে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার বিল্ড করতে পারেন। তবেই আপনার অনলাইন ক্যারিয়ার বেটার ভাবে বিল্ড করতে পারবেন।

বাট- দিন, রাত এক করে যদি শুধু চিন্তাই করে যান, আপনার ইনকাম কেন হচ্ছে না? কখন হবে! তাহলে তা কখনই বাস্তবে রূপান্তরিত করতে পারবেন না। আপনি যে টাইম টা শুধু চিন্তা করবেন কখন কিভাবে আপনার ইনকাম হবে, সেই টাইম টাকে কাজে লাগিয়ে কোন কোন একটি নির্দিষ্ট স্কিল নিজের আয়ত্তে করে নিন। দেখবেন টাকাও আসবে পাশাপাশি আপনার অনলাইন ক্যারিয়ার ও বিল্ড হয়ে যাবে। এক কথায় বেটার একটা ফিউচার পেতে পারেন।

ভুল পথে নিজেকে গুলিয়ে ফেলা

হ্যাঁ মানুষ ভুল থেকে শিখে থাকে, তবে ভুল টা যদি প্রতিনিয়ত রুটিন করে করা হয়ে থাকে – তবে সেই ভুল কে কোন ভাবেই, ভুল বলা চলে না। আপনিও করুন না ভুল – ভুল করেই শিখুন, তবে ভুল করার মাত্রাটা যেন অনেক বেশি না হয়ে যায় এই বিষয়েও আপনাকে ধ্যান রাখতে হবে।

কেননা, আপনি যদি একই ভুল প্রতিনিয়ত করে যান – তাহলে আপনি আপনার করা ভুল থেকে শিখছেন টাই বা কি? আচ্ছা, আচ্ছা পরিস্কার করে বুঝিয়ে বলছি।

প্রথমত এটা আপনাকে স্বীকার করতেই হবে – সব কাজ কিন্তু সবার জন্য নয়। সব কাজ সবাইকে দিয়ে সম্ভব ও নয়। তাই আপনি কোন এক বিজ্ঞ মানুষ কে দেখলেন সে শুধু বক,বক করেই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করে যাচ্ছে।

এবং এটা দেখা মাত্র আপনার মতে হতে থাকলো, আপনিও অনলাইনে এমন একটা বক,বক করার দোকান করে নিয়ে বসবেন। যেমন টা চিন্তা তেমন টাই কাজ। অর্থাৎ আপনিও সেই বিজ্ঞ ব্যক্তিকে অনুসরণ করে অনলাইনে নিজের একটি বক,বক করার দোকান খুলে নিয়ে বসলেন।

এবং তারপর প্রথম কিছুদিন আপনি প্রচণ্ড রকম ভাবে বক,বক করতেই থাকলেন। এবং সেই সাথে এটা ভাবলেন যে আমি এতো বেশি বক,বক করছি তার মানে নিশ্চয়ই আমার দোকানে অনেক বেশি কাস্টমার আসবে ও আমি প্রচুর টাকা ইনকাম করব।

কিন্তু না। কিছুদিন পর আপনি বুজতে শুরু করলেন আপনি অনেক বেশি বক বক করা সর্তেও আপনার দোকানে কাস্টমার আসছে না। কিন্তু সেই বিজ্ঞ ব্যক্তি উনি সারাদিনে বা কয়েক দিন পর পর তার দোকান খুলে একটু বক,বক করলেই তার ইনকাম হচ্ছে। ইভেন সে প্রচুর কাস্টমার ও পাচ্ছে।

কিন্তু এমন কেন হবে। সেও বক, বক করছে – আমিও বক,বক করছি! তাহলে কেন তার দোকানে কাস্টমার বেশি হবে?

তার কারন আপনি বক, বক করাতে অভিজ্ঞ নন। বা বক বক করার উপরে আপনার কোন স্কিল ও নাই। আপনি শুধুই সেই বিজ্ঞ ব্যক্তি কে দেখে তার ওই বক,বক করা থেকে ইনকাম হবার গল্পের পিছে ভেগেছেন।

না আপনার মন থেকে ভাল লাগে বেশি কথা বলতে, না আপনার কোন আগ্রহ আছে ওই কাজের প্রতি – আপনি শুধু টাকা ইনকাম করার জন্য একটি বক,বক করার দোকান খুলে বসেছিলেন।

বাট কি হল, বা এরকম গল্পের শেষ কি, এটা আশা করছি আপনি সঠিক ভাবে বুজতে পেরেছেন। আর ঠিক এই জন্যই কাউকে দেখা মাত্র, বা তার ইনকাম এর গল্প শুনে আপনিও সেইম কাজ টিতে লাফিয়ে পড়বেন না।

আগে নিজেকে যাচাই করুন, আপনি সেই কাজে নিজের সম্পূর্ণ ডেডিকেশন দিতে পারবেন কিনা। বা আপনি যার ইনকাম এর গল্পের প্রেমে পড়ে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার বিল্ড করবেন ভাবছেন, তার থেকে আপনি ইন্টারনেট বাসিকে বেটার কিছু দিতে পারবেন কিনা। এটা যাচাই করুন তারপরই গল্পের প্রেমে পড়ূন।

আপনার স্কিল না থাকায়

কেউ জন্ম নেবার পর থেকেই কোন নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর নিজের স্কিল নিয়ে জন্মায় না। ব্যাপার টা আসলে ভেতর থেকে আসা চাই। এবং নিজেকে যে কোন একটি কাজে বেটার স্কিল অর্জন করিয়ে তোলার ক্ষমতা টা থাকা চাই।

মানে ব্যাপার টা এমন নয়। উড়ে এসে জুড়ে বসা। আপনার নাই কোন অভিজ্ঞতা/ দক্ষটা আপনি কাউকে দেখা মাত্রই তার মত হয়ে উঠতে চান। ও তার পৃথিবীটাকে নিজের মত করে তুলতে চান। ইহা কিভাবে সম্ভব নিজেই ভেবে দেখুন।

আসলে এখানে ভুল টা আপনার নয়। ভুল টা হচ্ছে কিছু সংখ্যক মানুষের যারা আপনাকে ভুল পথ প্রদর্শন করিয়ে আপনার টাইম টা বরবাদ করে চলেছে।

আচ্ছা, বলুন তো অনলাইনে ক্যাপচা পুরন করে কি নিজের একটা ব্রাইট ফিউচার করা পসেবল। যদি তাই হত তাহলে অনলাইনে ইনকাম করা নিয়ে এতো এতো কষ্ট করবার কোন অবশ্যকতাই থাকতো না। সবাই অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার ক্যাপচা পুরন করবার ফর্মুলা আয়ত্ত করেই বিল্ড করে ফেলতো।

বাট রিয়েলিটি দেখুন, এই কাজের কিন্তু কোন মূল্যই নাই। অথচ আপনি একটু ইউটিউব করে দেখুন আপনি এই টপিকের উপর একাধিক ভিডিও পেয়ে যাবেন, এবং সেই ভিডিও টে উল্লেক করে এটাও বলা হয়েছে, অনলাইনে ক্যাপচা পুরন করে অমুক এতো টাঁকা ইনকাম করেছে। বা অমুক ক্যাপচা পুরন করে প্রতিদিন ১০/১৫ ডলার ইনকাম করেছে।

হ্যাঁ, গল্প টা মিথ্যা নয় – ক্যাপচা পুরন করেও অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়। তবে টা সারাদিনে ১ ডলার ও হবে কিনা এটা নিয়ে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে।

এখন ভাবুন আপনি নিজের ক্যারিয়ার অনলাইনে বিল্ড করতে চাচ্ছেন! আর আপনি করছেন অনলাইনে ক্যাপচা পুরন করে ইনকাম করবার চিন্তা। তাহলে কিভাবে হবে বলুন?

এই কাজে আপনার কি কোন স্কিল এর প্রয়োজন পড়ছে? না! কিছুর’ই প্রয়োজন পড়ছে না। তাহলে যেখানে শেখার কিছুই নেই, সেই কাজ কে পুঁজি করে আপনি কিভাবে চিন্তা করতে পারেন – যে আপনি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এখানে আসল গল্প হচ্ছে, আপনি যদি অনলাইন থেকে সত্যি ইনকাম করতে চান – তাহলে ক্যাপচা ইনকাম বা এই অ্যাপস থেকে এতো টাঁকা ইনকাম করে নিন। এরকম টাইটেল এর ভিডিও বা আর্টিকেল দেখা মাত্রই বা বয়কট করুন। অন্যথায় আপনি আপনার টাকা, মেধা ও সময় সব কিছুকেই নষ্ট করবেন।

সর্বদাই মাথায় রাখুন অনলাইন থেকে ইনকাম করাটা সহজ কাজ নয়। অনলাইন থেকে ইনকাম করবার জন্য সময় ও মেধা এই দুটি বিষয়ের অনেক গুরুত্ব। তাই আপনি যদি মন প্রান থেকে চান অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার তৈরি করবেন। তাহলে ভাল কোন একটি কাজ শিখে ফেলুন ও তারপর আপনার মেধা কে কাজে লাগিয়ে সবার সামনে আপনার শেখা কাজ কে উপস্থাপন করুন।

হতাশ হয়ে পড়া

আমি দেখেছি নতুন যারা অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার তৈরির স্বপ্ন নিয়ে এই ফিল্ডে আসে, তাদের অল্প কিছুদিন পরেই হতাশ হয়ে পড়তে হয়। কিন্তু কেন?

কারন, এই ফিল্ড টা এমন’ই আপনি ঠিক যতটা বেশি সময় দিবেন নিজের কাজ নিপুন ভাবে করবেন। তার বিপরিতে এই অনলাইন ভিত্তিক ফিল্ড ও আপনাকে ঠিক ততাতাই ফেরত দিবে।

কিন্তু নতুনেরা হতাশ হয়ে পড়ে এই জন্য যে। তাদের আসলে ঠিক ভাবে সাপোর্ট দেওয়ার কেউ নেই। আবার এমন ও হয়, ওই অনেক দিন কাজ পরার পর যখন তারা ধিরে ধিরে বুজতে শুরু করে যে না কিছুই হচ্ছে না। তারপর থেকে হতাশ হতে শুরু করে ও একটা সময়ে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার তৈরির স্বপ্ন ভেঙ্গে যায়।

আসলে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার তৈরির গল্প টা হচ্ছে, কিছুটা ছোট বয়েসে পড়া “খরগোশ ও কচ্ছপ” এর মত। যাদের দেখছেন অনেক বেশি দৌড়াচ্ছে, একটা সময়ে দেখবেন তারা হোঁচট খেয়ে পিছে পড়ে আছে। আর সেই গল্পের মত “কচ্ছপ” জিতে যাচ্ছে।

অর্থাৎ আপনাকে এই অনলাইন ফিল্ডে নিজেকে সঠিক প্রমানিত করে তুলতে চাইলে ধিরে ধিরে আগাতে হবে, নিজেকে প্রচুর ভাবে গুছিয়ে নিতে হবে। এবং নিজের প্রতিটা পদক্ষেপ এমন ভাবে ফেলতে হবে যা আপনাকে অন্যদের থেকে ভিন্ন কিছু করতে সহায়তা করবে।

অনলাইনে নিজের একটা বেটার ফিউচার দেখার পূর্বে যদি আপনি এটা দেখেন, আপনার এই কাজ টাই সব অর্থাৎ আপনাকে অনলাইনে নিজের ক্যারিয়ার বিল্ড করতেই হবে। তবে আমি এতোটুকু আশাবাদি যে আপনি অবশ্যই অনলাইনে নিজের ফিউচার অনেক ভালো করে তুলতে পারবেন।

মনে রাখবেন, আপনি আপনার কাজের পিছে যতটা শ্রম দিবেন, আপনার কাজ ও একটা টাইমে ঠিক ততটাই আপনাকে ফিরিয়ে দিবে। তাই কোন ভাবেই হতাশ হলে চলবে না।

অনেক দ্রুত সিধান্ত নেওয়া যাবেনা

আপনি আপনার আসেপাসে দেখলেন, আপনার পরে এই কাজের ফিল্ডে এসেও অনেকে সফলতা পেয়ে যাচ্ছে। বাট আপনি এখনও কিছুই করে উঠতে পারছেন না।

এবং তারপর আপনি কখনও এটা ঠিক করে বসলেন; আচ্ছা আমার অনেক পরে এই ফিল্ডে আসা সর্তেও দেখি অনেকে সফলতা পাচ্ছে, কেমন হয় আমিও দেখি না বাকিরা যা করে সফলতা পেয়েছে আমিও সেইম থিং করি।

দেখুন এরকম চিন্তা করা মানে হচ্ছে আপনার “আম ও যাবে সাথে ছালাও যাবে” ঠিক তাই। কেননা ঐযে আপনাকে অনেক আগেই বলা হয়েছে সব কাজ কিন্তু সবার জন্য না।

আপনি হয়ত যে কাজ টি এখন করছেন, এই কাজ টিতে আপনি অনেক বেশি পারদর্শী – কিন্তু আপনি নিজেকে ঠিক ভাবে এখনও চিনতে পারেন নাই যার জন্য এখনও আপনি ঠিক ভাবে নিজের করা কাজ কে গুছিয়ে করতে পারছেন না।

আর ওদিকে আপনি যাদের দেখছেন যে তারা আপনার পরে এসেও অনলাইনে নিজদের একটা যায়গা করে নিয়েছে, হতে পারে তারা ওই কাজটিতে অনেক বেশি পারদর্শী। বা ওই কাজ টির পিছে তারা তাদের শতভাগ দিয়েছে। যার ফলে নিজের কাজ অনেক গুছিয়ে তুলতে পেরেছে ও খুব অল্প সময়ে সফলতার মুখ দেখতে পেয়েছে।

এখন আপনার যদি মনে হয় যে না, আপনিও ওই কাজের জন্য একজন আদর্শ পারশন। তাহলে নির্দ্বিধায় আপনিও সেইম থিং করতে পারেন।

বাট, কিছুদিন পর আপনার মনে হল আপনি আগে যে কাজ টি নির্বাচন করেছিলেন ওই কাজ টিই আপনার জন্য একদম আদর্শ ছিল।

যদি চিন্তা ভাবনা এমন হয়, ও প্রতিনিয়ত আপনি আপনার সিধান্ত পরিবর্তন করতে থাকেন। তাহলে অনলাইনে কেন আই গেস কোন কাজ কেই আপনি ঠিক ভাবে করে উঠতে পারবেন না।

তাই প্রতিনিয়ত কাউকে দেখে বা তার গল্প শুনে নিজের সিধান্ত পরিবর্তন করতে যাবেন না। নিজের সিধান্তে অটুট থাকুন ও নিজের কাজ বেটার ও আরো বেটার করে তুলবার চেস্টায় থাকুন। দেখবেন একটা টাইম আসবে তখন আপনার করা কাজের স্টাইল অনেকেই ফলো করতে শুরু করবে।

মূলকথাঃ-

ব্যক্তিগত ভাবে বলতে গেলে, একটা সময় আমার সাথেও এই ঘটনা গুলি পালাক্রমে ঘটেছে। এবং আমার মাথাও ও এই সেইম প্রস্ন টা অনেক এলেমেলো ভাবে ঘোরাফেরা করেছে, যে আমি কেন অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারছি না। আমার ভুল গুলা কোথায়?

আসলে আমি নিজে একটা ভুলের পাহাড় ছিলাম, ইভেন আমি এখনও ভুল করি। এবং নিজের করা ভুল গুলিকে গুছিয়ে নিয়ে তাকে ঠিক করবার চেষ্টা করি।

আমি জানি বর্তমান জেনারেশন অনলাইনে ইনকাম মানেই মারাত্মক হাইপ তৈরি করে লাফালাফি করা। অমুক তমুক করে অনলাইনে কাজ করে নিজের ক্যারিয়ার তৈরি স্বপ্ন দেখতে থাকা মানুষের সংখা কম নয় এখন।

কিন্তু দিন শেষে অনেকেরই, অনলাইনে ইনকাম স্বপ্ন শুধু স্বপ্নই থেকে যায়। যার পিছে উপরে উল্লেখিত কারন গুলিই দায়ি। এই ভুল গুলি আমিও করে এসেছি ও আমি খুব ভাল করেই এখন বুঝি যে কেন তখন আমার অনলাইন থেকে ইনকাম হত না। এই অনলাইন ফিল্ডে তো আর কম দিন নই আমি।

আজকের আর্টিকেলে আমি চেষ্টা করেছি, একদম জলের মত সহজ করে সব টা ভাঙ্গিয়ে উপস্থাপন করার। ঠিক কেন বা কি কারনে আপনার অনলাইন থেকে ইনকাম হয় না এই টপিকের উপরে।

জানিনা ঠিক কতটুকু সহজ করে আপনাদের সামনে উপস্থাপন করতে পেরেছি। তো আপনার যদি এই আর্টিকেল রিলেটেড কোন প্রস্ন বা মতামত থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট সেকশনে আমায় তা অবশ্যই জানাতে পারেন। বাই,বাই!

হ্যাপি লার্নিং

ইমেজ ক্রেডিট; By Christian Dubovan Via Unsplash

আপনিও কি আমার মত টেক পোকা? আপনারও কি নতুন নতুন টেকনোলজি বিষয়ে জানতে ভালো লাগে? তাহলে বন্ধু আপনি একদম সঠিক জায়গাতে এসেছেন, কেননা আমি এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন টেক বিষয় গুলি নিয়ে আলোচনা করি, এবং টেকনোলজির জটিল টার্ম গুলিকে আপনাদের সামনে জলের মত সহজ করে উপস্থাপন করার চেষ্টা করি

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

>